ঢাকা, বুধবার, ২৩ জুন ২০২১, ৯ আষাঢ় ১৪২৮ আপডেট : ১ মিনিট আগে

প্রকাশ : ০৯ জুন ২০২১, ১৬:১৯

প্রিন্ট

আমের বাহারি নাম নিয়ে ছড়া

আমের বাহারি নাম নিয়ে ছড়া
ছবি: সংগৃহীত

জার্নাল ডেস্ক

সুস্বাদু ও পুষ্টিকর ফলের মধ্যে আম অনেকেরই পছন্দের শীর্ষে। আমকে ফলের রাজাও বলা হয়। বাহারি স্বাদ ও রঙের জন্যই নয়, স্বাস্থ্যগত উপকারের জন্যও ফলটি বেশ প্রিয়। আমের মৌসুমে পাকা আমের সুখ কে না জানে। তাইতো আমকে ভালোবেসে ছড়া লিখেছেন জ্যোতির্ময় সেন। বাংলাদেশ জার্নালের পাঠকদের জন্য তুলে ধরা হলো আমের বাহারি নাম নিয়ে সেই ছড়া।

বাজারে এসেছে দ্যাখো, রাশি রাশি আম,

আছে এর নানা স্বাদ, বিচিত্র নাম!

ল্যাংড়া আমের আছে চাহিদাটা বেশ,

হিম সাগরের নামে মাতোয়ারা দেশ।

এমন আমের নাম আরো কিছু পাই,

আম জনতাকে নাম বলে যেতে চাই।

ফজলি, গোপাল ভোগ, গিরা, আশ্বিনী,

গোবিন্দ ভোগ, নারকেলি, কলাচিনি।

অগ্নি, অমৃতভোগ, চোষা, চিনিপাতা,

ডালভাঙা, মালদাই, আতাউল আতা।

আলফানসো, পাহাড়ি, তোফা, তোতাপুরী,

কালিভোগ, দাদভোগ, ভাঙা, সিন্দুরী।

ঝিনুক, সূর্যপুরী, রাজভোগ, গুটি,

ফজলি কালান, রানি পছন্দ, পুঠি।

বৈশাখী, চরবসা, ধুপা, কোহিতুর,

চিনিবাসা, দেওভোগ, লতা, মতিচুর।

কাঁচামিঠা, কারাবাউ, খাসা, ক্ষিরমন,

ক্ষিরপুরী, লাড়ুয়ালি, রাগ, দর্শন।

বনরাজ, রোসামেরি, রুপালি, কালিয়া,

সীতাভোগ, দুধসর, সফেদা, ছাবিয়া।

বাতাসা, বাদশাভোগ, হাড়িভাঙা, রানি,

সুবর্ণরেখা, রুবি, ভাদুরি, ভবানি।

লক্ষ্মণভোগ, ক্ষিরসাপাত, বোতলা,

সাদাপাড়, লতারাজ, দেউরি, দোফলা।

ছিদরালি, জাওনিয়া, পাথি পাথুরিয়া,

খিরসা, রসুনে, বউ ভোলানি, ফুনিয়া।

গোড়ভোগ, টিয়াকাঠি, টিক্কাফারাস,

মালগোবা, মালভোগ, টোপা, বেলখাস।

বেলতা, বৃন্দাবনি, বারি, বারোমাসি,

চম্পা, কৃষ্ণচূড়া, হায়াতি, কাটাসি।

অরুণা, আম্রপালি, কেরি, কলাবতী,

নকলা, নয়নভোগ, ভুলিয়া, ভারতী।

ভুজাহাড়ি, মধুমামি, নোড়া, তালপানি,

আদাইরা, আনারস, রিডা, রাজরানি।

সন্ধ্যাভারতি, চেপি, চোপ, চোকানান,

জর্দা, রত্না, দিলশাদ, পাহুতান।

গোল্লা, গুল্লি, গোলগুল্লি, ত্রিফলা,

হুক্কা, হুগলি, জালিবান্ধা, বিমলা।

বাওয়ানি, শ্যামলতা, পিকো, কোহিতুর,

তাইমুর, বড়বাবু, রুপি, লোহাচুর।

দারভাঙা, মল্লিকা, জিতুভোগ, জিল,

নাশপাতি, ছানাজুর, এন্ডুজ, নীল।

সিডলেস, সারাবাবু, মাড়ু, অসটিন,

গোড়মতি, আওবেক, পাহো, পারভিন।

মণ্ডা, মিশ্রিদানা, জর্দালি, কুয়া,

দাশেহারি, মাসমুদা, লখনা, লাড়ুয়া।

আইভোরি, জাকার্তা, গ্রিন, রসবতী,

কাইটুক, সানসেট, ঝুমকা, মালতি।

সরিখাস, জিবাভোগ, ডট, ছাতাপরা,

কোরাকাও, বড়শাহী, মোরা, মনোহরা।

জোয়ালা, গোলাপ খাস, নাম ডক মাই,

মিআম্বা, রওশন টাকি, বোম্বাই।

পারিজা, ইলশাপেটি, পকনা, কালুয়া,

গোলেক, গুঠলি, মধুচুষকি, দালুয়া।

ম্যাটরাজ, লতাখাট, কেনসিংটন,

আনানাস খাস, রাজমনু, এলডন।

এসপাডো, ক্যালেন্ডা, টিটি, লালমুন,

চন্দ্রকরণ, অগডিন, ডালকুন।

রুমানি, প্যারোট, টমি, টেম্পারি, ব্রোসা,

হিন্দি, পদ্মমধু, রাজাপুরি, রোসা।

গিড়াদাগি, জামুরাদ, স্যানোরা, শ্রীধন,

খাসুখাস, রসপুরি, অ্যামেলি, ক্যানন।

জাফনা, মোহনভোগ, কীট, পালমার,

নীলম, বাউই ঝুলি, গণ্ডু, রোয়ার।

পেইরি, বোতল বেকি, ডাব্বা, ফ্যাসেল,

আমিনি, পীরের ফলি, জিলেট, ক্যাসেল।

সুলতান পছন্দ, চন্দন খাস,

দশেরি, দুদুল, গাজীভোগ, চৌরাস।

রসকি জাহান, জুলি, কিউ, কোরাজন,

জাফরান, গামপুন, মিঠুয়া, চরণ।

কাজলি, নীলাম্বরী, সাটিয়ার ক্যাড়া,

ভাদ্রি, কিষাণভোগ, ফনিয়ার চারা।

গিলা, সুন্দরী, কুয়া পাহাড়ি, জিহুয়া,

লখ্যা, কুমড়া জালি, গুইরা, ফালুয়া।

চকচকা, শেরীধন, ম্যাকো, বোরবন,

কারলোটা, মাংগুরা, নাজুক বদন।

পৃথিবীতে কত আম! ক’টা নাম জানি? আম নিয়ে এ লেখার তাই ইতি টানি।

(লেখকের ফেসবুক থেকে সংগৃহীত)

বাংলাদেশ জার্নাল/কেআই

  • সর্বশেষ
  • পঠিত
  • আলোচিত