ঢাকা, শনিবার, ২৬ সেপ্টেম্বর ২০২০, ১১ আশ্বিন ১৪২৭ আপডেট : ১ ঘন্টা আগে English

প্রকাশ : ১৫ আগস্ট ২০২০, ১১:০৯

প্রিন্ট

রিমান্ডে ‘গুরুত্বপূর্ণ তথ্য’ দিয়েছেন ৭ আসামি

রিমান্ডে ‘গুরুত্বপূর্ণ তথ্য’ দিয়েছেন ৭ আসামি
জার্নাল ডেস্ক

অবসরপ্রাপ্ত মেজর সিনহা মো. রাশেদ খান হত্যা মামলায় নতুন তদন্ত কর্মকর্তা (আইও) নিয়োগ করা হয়েছে। অন্যদিকে, এই মামলায় আসামি পুলিশের চার সদস্যকে গতকাল শুক্রবার রিমান্ডে নিয়েছে র‌্যাব। পাশাপাশি রিমান্ডে নেয়া হয়েছে পুলিশের করা মামলার তিন সাক্ষীকেও। এই তিন সাক্ষীকে সিনহা হত্যায় জড়িত সন্দেহে মঙ্গলবার আটক করেছে র‌্যাব। প্রথম দিনের জিজ্ঞাসাবাদে আসামিরা অনেক গুরুত্বপূর্ণ তথ্য দিয়েছেন বলে জানিয়েছে সংশ্নিষ্ট সূত্র। তবে এ ব্যাপারে কথা বলতে রাজি হননি মামলার তদন্ত কর্মকর্তা।

র‌্যাবের আইন ও গণমাধ্যম শাখার পরিচালক লে. কর্নেল আশিক বিল্লাহ জানান, সিনহার বড় বোন শারমিন শাহরিয়া ফেরদৌসের করা মামলা এবং টেকনাফ ও রামু থানায় পুলিশের করা তিনটি মামলায় নতুন তদন্ত কর্মকর্তা হচ্ছেন সিনিয়র সহকারী পুলিশ সুপার মোহাম্মদ খায়রুল ইসলাম। তিনিই চারটি মামলার তদন্তকাজ পরিচালনা করবেন।

এর আগে সহকারী পুলিশ সুপার (এএসপি) জামিল আহমেদ মামলাগুলোর তদন্ত কর্মকর্তা হিসেবে দায়িত্ব পালন করছিলেন। তাকে বাদ দিয়ে নতুন তদন্ত কর্মকর্তা কেন নিয়োগ দেওয়া হয়েছে এর কারণ জানাননি আশিক বিল্লাহ। তিনি বলেন, খায়রুল ইসলাম একজন দক্ষ ও বিচক্ষণ কর্মকর্তা। অতীতে বেশকিছু চাঞ্চল্যকর মামলার আইও হিসেবে তিনি সুনাম ও পেশাদারিত্বের পরিচয় দিয়েছেন।

সংশ্নিষ্ট সূত্র জানিয়েছে, খায়রুল ইসলামের নেতৃত্বে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য গতকাল পুলিশের চার সদস্য- কনস্টেবল সাফানুর করিম, কামাল হোসেন, আবদুল্লাহ আল মামুন ও এএসআই লিটন মিয়া এবং আটক সন্দেহজনক আসামি টেকনাফের বাহারছড়ার মারিশবুনিয়া এলাকার নুরুল আমিন, নিজাম উদ্দিন ও মোহাম্মদ আয়াছকে গতকাল সকালে জেলা কারাগার থেকে নিজেদের হেফাজতে নেয় র‌্যাব।

এর আগে ৮ ও ৯ আগস্ট কক্সবাজার কারা ফটকে পুলিশের এই চার সদস্যকে জিজ্ঞাসাবাদ করে গুরুত্বপূর্ণ তথ্য পাওয়া যায় বলে র‌্যাবের দাবি। এর ফলে তাদের আরও ব্যাপকভাবে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য ১০ দিনের রিমান্ড চেয়ে আবেদন করলেও আদালত শুনানি শেষে তাদের প্রত্যেককে সাত দিনের রিমান্ড মঞ্জুর করেন।

সিনহা হত্যা মামলায় টেকনাফ থানার বরখাস্ত হওয়া ওসি প্রদীপ কুমার দাশ, এসআই লিয়াকত আলী ও এএসআই নন্দ দুলাল রক্ষিতের সাত দিনের রিমান্ড মঞ্জুর করেছেন আদালত। পুলিশের এই তিন কর্মকর্তাকে এখনও রিমান্ডে নেওয়া হয়নি। র‌্যাব সূত্র জানায়, অন্য আসামিদের জিজ্ঞাসাবাদ শেষ হলে আলোচিত এই তিন কর্মকর্তাকে রিমান্ডে নেওয়া হবে। এর আগে মামলার প্রত্যক্ষদর্শী ও সাক্ষীদের ব্যাপকভাবে জিজ্ঞাসাবাদ করা হবে।

কাল গণশুনানি- সিনহার মৃত্যুর ঘটনায় স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের তদন্ত কমিটির সদস্যরা কাল রোববার সকালে টেকনাফের শামলাপুরে গণশুনানির আয়োজন করেছেন। ঘটনার প্রত্যক্ষদর্শী এবং স্থানীয়দের গণশুনানিতে সাক্ষ্য দেওয়ার জন্য আহ্বান জানিয়েছে কমিটি। সূত্র: সমকাল

  • সর্বশেষ
  • পঠিত
  • আলোচিত