ঢাকা, বুধবার, ১৮ সেপ্টেম্বর ২০১৯, ৩ আশ্বিন ১৪২৬ আপডেট : ৪ মিনিট আগে English

প্রকাশ : ২৫ আগস্ট ২০১৯, ১৭:৪৫

প্রিন্ট

আবেদন করলেও সরকারের থেকে জমি আশা করেন না রুমিন

আবেদন করলেও সরকারের থেকে জমি আশা করেন না রুমিন
অনলাইন ডেস্ক

প্লট চেয়ে গৃহায়ন মন্ত্রীর কাছে পাঠানো চিঠি ফেইসবুকে ভাইরাল হওয়ার কারণে চটেছেন বিএনপির সংসদ সদস্য রুমিন ফারহানা। তার প্রশ্ন মন্ত্রণালয়ের গোপন নথি বের হয় কি করে? আর আমি এই সরকারের কাছ থেকে এক সুতা জমিও আশা এবং চিন্তাও করি না।

গত ৩ আগস্ট রুমিন ফারহানার স্বাক্ষরে সংসদ সদস্যের প্যাডে গৃহায়ন ও গণপূর্ত মন্ত্রীর বরাবর ওই চিঠি পাঠানো হয়। সেখানে বলা হয়, ঢাকা শহরে তার নামে কোনো ফ্ল্যাট বা জমি নেই। ওকালতি ছাড়া তার অন্য আর কোনো ব্যবসা বা পেশা নেই। এ জন্য ঢাকার পূর্বাচল আবাসিক এলাকায় তার ১০ কাঠার একটি প্লট প্রয়োজন।

এমতাবস্থায়, আপনার নিকট আমার আবেদন, আমার নামে ১০ কাঠা প্লট বরাদ্দ করলে আমি আপনার কাছে চির কৃতজ্ঞ থাকবো।

তবে ওই চিঠি মন্ত্রণালয় থেকে বাইরে যাওয়ার পেছনে সরকারের হাত রয়েছে অভিযোগ করে রুমিন ফারহানা বাংলাদেশ জার্নালকে বলেন, এটা একটা রাষ্ট্রীয় সুবিধা। সকল মন্ত্রী-এমপিরা এই জন্য এপ্লিকেশন করতে পারেন। আর সবাই এজন্য এপ্লিকেশনও করেছেন। সুতরাং সবাই চেয়েছেন বলে আমিও চেয়েছি। এখন আমার কথা হচ্ছে, বাকি যারা চেয়েছেন তাদের নামও তাহলে প্রকাশ করা হোক। রুমিন কেন একলা?

তিনি আরও বলেন, আমার প্রশ্ন হচ্ছে, মন্ত্রণালয়ের গোপন নথি বের হয় কি করে? তাহলে কি রাষ্ট্রের কোন নাগরিকের কোন তথ্যই নিরাপদ না।

বিএনপির এই এমপি বলেন, আমি সরকারকে অবৈধ বলি, এটাই আমার দোষ। কারণ আমি সরকারের দুর্নীতি, আইনের অভাব এবং মানুষ ন্যায় বিচার পাচ্ছে না- এগুলো নিয়ে কথা বলি। এটাই হচ্ছে আমার সমস্যা।

রুমিন ফারহানা বলেন, আমি স্পষ্ট ভাষায় বলতে চাই, আমি এই সরকারের কাছ থেকে এক সুতা জমিও আশা এবং চিন্তাও করি না। এটা একটা প্রসিডিউর ও ফরমালিটিজ- যেটা সব এমপি করেছেন। আমিও করেছি।

সংরক্ষিত নারী আসনের এই এমপি বলেন, ওই চিঠির খসড়া তৈরি করেছেন তার ব্যক্তিগত সহকারী, যেমনটা সব এমপির ক্ষেত্রে করা হয়।

বিএনপির এই সহ-আন্তর্জাতিক বিষয়ক সম্পাদক বলেন, আমার চিঠিটা কেন ভাইরাল হলো? এটা ভাইরাল কেন হল তার উত্তর আমি নিজেই দিচ্ছি। আবুল মাল আবদুল মুহিত সাহেব (সাবেক অর্থমন্ত্রী) কোনো পদে না থাকা অবস্থায় শুল্কমুক্ত সুবিধায় গাড়ি এনেছেন। তিনি মন্ত্রী না, এমপিও না। তিনি কোন কোটায় গাড়ি এনেছেন?

রুমিন ফারহানা অভিযোগ করেন, আমার নিজস্ব ফেসবুক গত ৪ মাস ধরে হ্যাক করে রেখেছে। এই জন্য আমি কোন জবাব দিতে পারছি না। ফেসবুক হ্যাক করার জন্য আমি নিউ মার্কেট থানায় জিডি করতে গিয়েছিলাম। কিন্তু আমার জিডিও নেওয়া হয়নি।

প্রসঙ্গত, রুমিন ফারহানা গত ৯ জুন সাংসদ হিসেবে শপথ নেন। আর প্লটের জন্য আবেদন করেন ৩ আগস্ট।

বাংলাদেশ জার্নাল/কেআই

  • সর্বশেষ
  • পঠিত
  • আলোচিত