ঢাকা, মঙ্গলবার, ১০ ডিসেম্বর ২০১৯, ২৫ অগ্রহায়ণ ১৪২৬ আপডেট : ৩ মিনিট আগে English

প্রকাশ : ০৫ আগস্ট ২০১৯, ১৬:৩৫

প্রিন্ট

কমিউনিটি শিল্ডের শিরোপা জিতলো ম্যান সিটি

কমিউনিটি শিল্ডের শিরোপা জিতলো ম্যান সিটি
স্পোর্টস ডেস্ক

পেনাল্টি শ্যুট আউটে লিভারপুলকে ৫-৪ গোলে পরাজিত করে কমিউনিটি শিল্ডের শিরোপা জিতে নিয়েছে ম্যানচেস্টার সিটি। ওয়েম্বলীতে অনুষ্ঠিত ম্যাচটি নির্ধারিত সময়ে ১-১ গোলে অমিমাংসিত ছিল। এর মাধ্যমে মৌসুমের প্রথম থেকেই প্রতিদ্বন্দ্বী লিভারপুলের থেকে কিছুটা হলেও এগিয়ে থাকলো পেপ গার্দিওলার দল।

১২ মিনিটে রাহিম স্টার্লিংয়ের গোলে এগিয়ে যা সিটিজেনরা। ৭৭ মিনিটে জোয়েল মাটিপের গোলে সমতা ফেরায় লিভারপুল। শ্যুট আউটে সিটি গোলরক্ষক ক্লডিও ব্র্যাভো জর্জিনিও উইজনালডামের শটটি রুখে দেন। বিপরীতে ইকে গুনডোগান, বার্নার্ডো সিলভা, ফিল ফোডেন ও ওলেকসান্ডার জিনচেনকোর পর গ্যাব্রিয়েল জেসুস শেষ শটে সফল হলে সিটির জয় নিশ্চিত হয়।

শিরোপা জয়ে সিটির খেলোয়াড় ও সমর্থকদের একটু বাড়তি উচ্ছ্বাস মানসিক ভাবে লিভারপুলকে কিছুটা হলেও প্রভাবিত করেছে। ম্যাচ শেষে গার্দিওলা বলেছেন, ‘উভয় দলই দারুন একটি ফাইনাল উপহার দিয়েছে। আমাদের সময়টা ভাল কেটেছে। তবে শেষ ১৫ মিনিট আমরা প্রচন্ড পরিশ্রান্ত হয়ে পড়েছিলাম। ঐ সময়ে তাদের জয়ের সুযোগ ছিল। উভয় দলের জন্য এটি একটি ভাল পরীক্ষা ছিল। আসন্ন মৌসুমে খেলোয়াড়রা কি মোকাবেলা করতে যাচ্ছে তার কিছুটা হলে স্বাদ তারা পেয়েছে। এই মুহূর্তে দুই দলের মধ্যে কোন পার্থক্য নেই। এখানে শুধুমাত্র একটি শট কাজে লেগেছে। কিন্তু তারপরেও মৌসুমের প্রথম শিরোপাটা আমাদের।’

এই নিয়ে টানা তৃতীয়বারের মত কমিউনিটি শিল্ডের শিরোপা জিতলো ম্যানচেস্টার সিটি। পেপ গার্দিওলার দলের বিপক্ষে লিভারপুলের কাছ থেকে আরো বেশী চ্যালেঞ্জ আশা করা হয়েছিল। মূলত এই ম্যাচের মাধ্যমে মৌসুমের শুরুতে সকলেই ধারণা নেবার চেষ্টা করেছে পুরো মৌসুমে লিভারপুলের সামনে কি অপেক্ষা করছে। গত লিগে সিটির ৯৮ পয়েন্টের থেকে এক পয়েন্ট কম নিয়ে রানার্স-আপ শিরোপা নিয়েই সন্তুষ্ট থাকতে হয়েছে রেডসদের। অন্যদিকে প্রিমিয়ার লিগের পাশাপাশি এফএ কাপ ও লিগ কাপসহ ঘরোয়া ট্রেবল জয়ে সিটিজেনদের কেউ আটকাতে পারেনি। তবে চ্যাম্পিয়ন্স লিগের শিরোপা জেতার কারণে মাত্র এক পয়েন্টের জন্য লিগ শিরোপা হাতছাড়া হবার হতাশা অনেকটাই ভুলতে পেরেছিল জার্গেন ক্লপের শিষ্যরা।

ওয়েম্বলীতে কালকের হাই ভোল্টেজ ম্যাচে দুই দলই নিজেদের শক্তিমত্তার যথাযথ প্রমাণ রেখেছে। বিশেষ করে আগামী ১০ মাসের ব্যস্ত সূচীকে সামনে রেখে নিজেদের ঝালাই করে নেবার বিষয়টিও এখানে জড়িত ছিল। কমিউনিটি শিল্ডের শিরোপা ধরে রাখার মাধ্যমে সিটিজেনরা নিজেদের আত্মবিশ্বাসকে বাড়িয়ে নিয়েছে। তবে পরাজিত হয়েও লিভারপুলও নিজেদের পারফরমেন্সে দারুন খুশী। ম্যাচের ১০ মিনিটে ডান পায়ের ইনজুরির কারনে মাঠ থেকে বের হয়ে যান লিওরে সানে। পুরো ম্যাচে এই একটি ঘটনাই সিটিজেনদের বিপক্ষে গেছে।

লিভারপুলের বিপক্ষে সব ধরনের প্রতিযোগিতায় গত ১০টি ম্যাচে কোন গোল পাননি স্টার্লিং। ১২ মিনিটে কাইল ওয়াকারের হাই পাস থেকে কেভিন ডি ব্রুয়েনে হেড করে ডেভিড সিলভার দিকে বল বাড়িয়ে দেন। যদিও লিভারপুল এই সময়ে অফ-সাইডের আবেদন করেও সফল হয়নি। সিলভার ফ্লিকে গোলপোস্টের কাছ থেকে রেডস গোলরক্ষক এলিসন বেকারকে পরাস্ত করেন স্টার্লিং। ৭৭ মিনিটে জর্ডান হেন্ডারসনের ফ্রি-কিক থেকে ভার্জিল ফন ডিকের সহযোগিতা বদলী খেলোয়াড় মাটিপ ম্যাচে সমতা ফেরান।

  • সর্বশেষ
  • পঠিত
  • আলোচিত