ঢাকা, শনিবার, ২৬ সেপ্টেম্বর ২০২০, ১১ আশ্বিন ১৪২৭ আপডেট : ৮ মিনিট আগে English

প্রকাশ : ১৩ আগস্ট ২০২০, ০৭:০৫

প্রিন্ট

ব্যাংক ঋণের নামে প্রতারণার দায়ে যুবলীগ নেতাসহ গ্রেপ্তার ৩

ব্যাংক ঋণের নামে প্রতারণার দায়ে যুবলীগ নেতাসহ গ্রেপ্তার ৩
জার্নাল ডেস্ক

ইন্টারন্যাশনাল ব্যাংক লোন সার্ভিসের কথা বলে প্রতারণার অভিযোগে সিরাজগঞ্জের তাড়াশে যুবলীগ নেতাসহ ৩ জনকে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ। বুধবার রাতে বগুড়া জেলা গোয়েন্দা (ডিবি) পুলিশ তাদের গ্রেপ্তার করে।

তারা ফেসবুকে ইন্টারন্যাশনাল ব্যাংক লোন সার্ভিস নামে পেজ খুলে দেশব্যাপী প্রতারণার জাল বিস্তার করছিল।

প্রতারণার অভিযোগে গ্রেপ্তার করা তিনজন হলেন- তাড়াশ উপজেলা যুবলীগের সহ-সভাপতি রাব্বী শাকিল ওরফে ডিজে শাকিল (৩২), তার সহযোগী আইটি বিশেষজ্ঞ হুমায়ুন কবির (২৮) ও ম্যানেজার হারুনার রশিদ (২৬)।

গ্রেপ্তারকৃতদের নামে বগুড়া সদর থানায় প্রতারণা ও ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনে মামলা হয়েছে।

রাব্বী শাকিল ওরফে ডিজে শাকিল কথিত রিশান ইন্টারন্যাশনাল ও ইন্টারন্যাশনাল ব্যাংক লোন সার্ভিস নামের দু’টি প্রতিষ্ঠানের চেযারম্যান। তারা এই দুই প্রতিষ্ঠানের নাম ব্যবহার করে দেশব্যাপী প্রতারণার জাল বিস্তার করেছিল।

গ্রেপ্তারের সময় তার অফিস থেকে ১ হাজার ২০১ কোটি টাকার ভুয়া চেক, সামরিক বাহিনীর ভুয়া নিয়োগপত্র, বিভিন্ন গণমাধ্যমের ভুয়া পরিচয়পত্র ও জালিয়াতির কাজে ব্যবহৃত বিভিন্ন সরঞ্জামাদী উদ্ধার করা হয়।

জানা গেছে, ইন্টারন্যাশনাল লোন সার্ভিসের নামে ফেসবুক পেজে বিজ্ঞাপন দেখে বগুড়ার আমায়রা এগ্রোফার্মের মালিক আমানতউল্লাহ তারেক ও অভি এগ্রোফার্মের মালিক আশিক তাদের সঙ্গে যোগাযোগ করেন। কমিশনের মাধ্যমে তাদেরকে পাঁচ কোটি টাকা ব্যাংক ঋণ পাইয়ে দেওয়ার নাম করে কয়েক দফায় ১৪ লাখ ৩৫ হাজার টাকা হাতিয়ে নেয় ডিজে শাকিল।

এরপর তাদেরকে যুব উন্নয়ন অধিদপ্তর থেকে ঋণ অনুমোদনের চিঠি এবং সাড়ে ৪ কোটি টাকার দু’টি চেকের স্ক্যান কপি মেইলে দেওয়া হয়। কিন্তু দীর্ঘদিনেও চেকের মূল কপি না দেওয়ায় তারা খোঁজ নিয়ে জানতে পারেন ঋণ অনুমোদনের চিঠি এবং চেকগুলো ভুয়া। পরে তারা বিষয়টি বগুড়া জেলা পুলিশকে জানালে ডিবি পুলিশের পরিদর্শক ইমরান মাহমুদ তুহিনের নেতৃত্বে পুলিশের একটি দল তাড়াশে অভিযান চালায়।

বগুড়া ডিবি পুলিশের পরিদর্শক ইমরান মাহমুদ তুহিন জানান, গ্রেপ্তারকৃতদের অফিসে অভিযান চালিয়ে ভুয়া চেক ছাড়াও সামরিক বাহিনী ও সরকারি বিভিন্ন প্রতিষ্ঠানের ভুয়া নিয়োগপত্র, চুক্তিনামা, ৬০টি সিম কার্ড, তিনটি কম্পিউটার, বিভিন্ন মিডিয়ার কয়েকটি ভুয়া পরিচয়পত্র উদ্ধার করা হয়েছে।

গ্রেপ্তারকৃতদের নামে বগুড়া সদর থানায় প্রতারণা ও ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনে মামলা হয়েছে।

বাংলাদেশ জার্নাল/আর

  • সর্বশেষ
  • পঠিত
  • আলোচিত