ঢাকা, শুক্রবার, ১৪ মে ২০২১, ৩১ বৈশাখ ১৪২৮ আপডেট : ৬ মিনিট আগে

প্রকাশ : ১৮ এপ্রিল ২০২১, ১৬:২৬

প্রিন্ট

প্রবাসীর স্ত্রীকে খুন করলো পরকীয়া প্রেমিক, মরলো ঘাতকও

প্রবাসীর স্ত্রীকে খুন করলো পরকীয়া প্রেমিক, মরলো ঘাতকও
প্রতীকী ছবি

রামগঞ্জ (লক্ষ্মীপুর) প্রতিনিধি

লক্ষ্মীপুরের রামগঞ্জে পরকীয়া প্রেম নিয়ে ঝামেলার জেরে ছুরিকাঘাতে মৌসুমী (৩৫) নামের এক প্রবাসীর স্ত্রী খুন হয়েছেন। এ ঘটনায় নিহতের ছেলে নাইমুর রহমান এবং একই বাড়ির রানু বেগমসহ আরো দুইজন আহত হয়েছেন। পরে গ্রামবাসীর গণপিটুনিতে নিহত হয়েছেন ঘাতক রাসেল (৪০)।

রোববার সকালে উপজেলার বাট্টা ইউনিয়নের জাফরনগর গ্রামে এ ঘটনা ঘটে।

ছুরিকাঘাতে খুন হওয়া মৌসুমী জাফরনগর গ্রামের কাতার প্রবাসী সফি উল্যাহর স্ত্রী। তিনি তিন সন্তানের জননী। অপরদিকে, গণপিটুনিতে নিহত রাসেল পার্শ্ববর্তী বলি মোল্লা বাড়ির ছিদ্দিক মোল্লার ছেলে। তিনি তিন সন্তানের জনক।

স্থানীয় ও পুলিশ সূত্র জানায়, উপজেলার জাফরনগর গ্রামের কাতার প্রবাসী সফি উল্যাহর স্ত্রী নাসরিন সুলতানা মৌসুমীর সঙ্গে পার্শবর্তী মোল্লা বাড়ির ছিদ্দিক মোল্লার ছেলে রাসেল মোল্লার দীর্ঘদিন যাবৎ পরকীয়া প্রেম চলে আসছে। এ নিয়ে পারিবারিকভেবে মৌসুমীকে চাপ দেয়া হয় সর্ম্পক বিচ্ছিন্ন করতে। মৌসুমি চেষ্টা চালায় সর্ম্পক বিচ্ছিন্ন করতে এবং নিজের নিরাপত্তার চেয়ে থানায় একটি জিডি করেন। এই খবর পেয়ে রাসেল আরো ক্ষীপ্ত হয়ে প্রবাসীর স্ত্রী মৌসুমীকে প্রাণনাশের হুমকি-ধমকি দিতে থাকে।

রোববার সকালে রাসেল উত্তেজিত হয়ে মৌসুমীর ঘরের সামনে গিয়ে দরজা খুলতে চাপ সৃষ্টি করে। পরিস্থিতি বেগতিক দেখে মৌসুমী গ্রাম্য পুলিশ মিজানুর রহমানকে খবর দেয়। পরে গ্রাম পুলিশসহ গ্রামের লোকজন উপস্থিত হলে পার্শ্ববর্তী বাড়ির আনোয়ার মোল্লার নিদের্শে দরজা খুলে দেয়া মাত্রই রাসেল ঘরে প্রবেশ করেই মৌসুমীকে এলোপাতাড়ি চুরিঘাত করে।

চুরিঘাতে মৌসুমী মাটিতে লুটিয়ে পড়লে স্বজনেরা দ্রুত উদ্ধার করে রামগঞ্জ সরকারি হাসপাতালে নিলে চিকিৎসক তাকে মৃত ঘোষণা করেন। পরে গ্রামবাসী ঘাতক রাসেলকে গণপিটুনি দিয়ে পুলিশে সোর্পদ করে। পুলিশ তাকে হাসপাতালে নেয়ার সময় পানিওয়ালা বাজার নামক স্থানে মৃত্যু হয়।

লক্ষ্মীপুরের পুলিশ সুপার এ এইচ এম কামরুজ্জামান বলেন, অবৈবাহিক সর্ম্পকের অবনতি হওয়ায় রাসেল ক্ষীপ্ত হয়ে হত্যার ঘটনা ঘটিয়েছে। মুহূর্তের মধ্যে উত্তেজিত জনতা ঘাতককে পিটিয়ে হত্যা করে। লাশ দুটি ময়নাতদন্তের জন্য মর্গে পাঠানো হয়েছে। দুটি হত্যার ঘটনাতেই পুলিশ আইনগত ব্যবস্থা নেবে।

বাংলাদেশ জার্নাল/এসকে

  • সর্বশেষ
  • পঠিত
  • আলোচিত