ঢাকা, বৃহস্পতিবার, ০৯ জুলাই ২০২০, ২৫ আষাঢ় ১৪২৭ আপডেট : কিছুক্ষণ আগে English

প্রকাশ : ০৯ জুন ২০২০, ১২:২২

প্রিন্ট

এই ভালোবাসাটা আমার অনেক বছরের অর্জন: তাসনুভা তিশা

এই ভালোবাসাটা আমার অনেক বছরের অর্জন: তাসনুভা তিশা
ইমরুল নূর

নাটক দিয়েই শুরু। এরপর কাজ করেন বিজ্ঞাপনচিত্র, মিউজিক ভিডিওতেও। অল্প সময়ের মধ্যেই নির্মাতাদের পছন্দের তালিকায় জায়গা করেন নেন তিনি। সব অঙ্গনেই রেখেছেন নিজের কৃতিত্ব। বলছিলাম মডেল ও অভিনেত্রী তাসনুভা তিশা'র কথা। ছোট পর্দার বাইরে অভিনয় করেছেন একটি সিনেমাতেও। সিনেমার নাম 'চল যাই'।

গেল দুদিন ধরে বেশ আলোচনায় এ অভিনেত্রী। সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে শিল্পী থেকে নির্মাতা সবার মুখেই তিশার অভিনয়ের প্রশংসার ফুলঝুরি। সদ্য প্রকাশিত হয়েছে ‘আগস্ট ১৪’ নামের একটি ওয়েব সিরিজ, যেটি নির্মিত হয়েছে সত্য ঘটনা অবলম্বনে। ক্রাইম থ্রীলার এ সিরিজটি নির্মাণ করেছেন শিহাব শাহীন।

ঐশী নামের বখে যাওয়া পুলিশ কর্মকর্তার মেয়ের গল্প এটি। ২০১৩ সালে যে মেয়েটি মা-বাবাকে নির্মমভাবে খুন করেছিল। আলোচিত সেই ঘটনা নিয়েই নির্মিত হয়েছে এ সিরিজটি। এতে তুশি চরিত্রে অভিনয় করেছেন তাসনুভা তিশা। এ সিরিজে তিশার দুর্দান্ত অভিনয়ে মুগ্ধ চারপাশ।

দীর্ঘ ৬ বছরের ক্যারিয়ারে কোন কাজের জন্য এমন সাড়া এবারই প্রথম পেলেন তিশা। আলোচনা,সমালোচনা সবকিছুই পজেটিভভাবে দেখছেন তিনি। সর্বমহলে এমন সাড়া পাওয়ায় বেশ উচ্ছ্বসিত এ অভিনেত্রী।

তিনি বলেন, গত কয়েকদিন ধরে এ কাজটির জন্য আমি অভূতপূর্ব সাড়া পাচ্ছি। বিভিন্নমাধ্যমে আমার সহকর্মী থেকে শুরু করে ভক্তরা আমাকে শুভেচ্ছা জানাচ্ছেন, কাজটির জন্য প্রশংসা করছেন। আমি সত্যি অনেক আনন্দিত। আমার ৬ বছরের অভিনয়ের ক্যারিয়ারে এবারই প্রথম এতটা ভালোবাসা পেলাম সবার কাছ থেকে। এর আগে অনেক কাজই প্রশংসিত হয়েছে কিন্তু এতটা হয় নি।

তিনি আরও বলেন, একটা সত্য ঘটনা অবলম্বনে এ সিরিজটি নির্মিত হয়। সে গল্প ও চরিত্র অনুযায়ী আমি আমার কাজটা করেছি। বাস্তবে ঐশী যেমন ছিল আমি সেটা করে দেখানোর চেষ্টা করেছি।

গল্পে বেশ কিছু অশ্লীল দৃশ্য, সংলাপ রয়েছে যেগুলো নিয়েও সমালোচনা উঠে। তিশাকে এর আগে এমনভাবে কখনও দেখা যায় নি। এ বিষয়ে তিশার ভাষ্য, যদি গল্পটা কাল্পনিক হতো তাহলে হয়তো এমন চরিত্রে আমি কাজ করতাম না। কিন্তু এটা সত্য ঘটনা, যেটা সবাই জানে। বাস্তবের ঐশী যেমন ছিল সেটা ফুটিয়ে তুলতে আমি শুধু চরিত্রের দিকে মনোযোগ দিয়েছি। আর এরমধ্যে অতিরঞ্জিত কিছু ছিল না তেমন। আর কাজটা প্রকাশিত হওয়ার পর সবাই তুশি চরিত্রের মধ্যে সেই ঐশীকে খুঁজে পেয়েছে। যার কারণে সবাই সহজেই বুঝতে পেরেছে। সমালোচনার চেয়ে অভিনয়ের প্রশংসাই বেশি পেয়েছি।

কাজটি করতে গিয়ে অভিজ্ঞতা সম্পর্কে তিশা বলেন, এই কাজটা আমার জন্য চ্যালেঞ্জিং ছিল। গল্পটি নিয়ে শিহাব ভাইয়ের সাথে দুদিন আলোচনা করি। ঐশীর সঙ্গে যা যা ঘটেছিল সব তথ্য সংগ্রহ করে ঐশী চরিত্রটাকে নিজের মধ্যে ধারণ করার চেষ্টা করেছি। যে কয়েকদিন কাজ করেছি আমি শুধু চরিত্রটার মধ্যেই ছিলাম। অন্য কারও সাথে কথা বলি নি। চেয়েছি আমার মধ্যে যেন দর্শকরা ঐশীকে দেখতে পায় এবং সেটাই হয়েছে।

এখন আমাকে স্ট্রাগল করতে হচ্ছে। নিজেকে আরও ইম্প্রুভমেন্ট করার চেষ্টা করছি। এই কাজটার জন্য আমাকে হার্ড ওয়ার্ক করতে হয়েছে। ওয়ার্কশপ করেছি নিজে। চেষ্টা করেছি নিজেকে প্রুভ করতে।

যোগ করে তিশা বলেন, সবার এত এত ভালোবাসা,সাপোর্ট আর প্রশংসা অর্জন করতে আমার অনেকটা সময় লেগে গিয়েছে। আমি কখনও হঠাৎ করে কিছু হয়ে যেতে চাই নি। চেয়েছি কাজ দিয়ে দর্শক মনে ঠাঁই পেতে। এই ভালোবাসাটা আমার অনেক বছরের অর্জন।

অনেকেই বলে থাকেন, তিশা ভালো অভিনেত্রী, তাকে অনেকেই ব্যবহার করতে পারেন নি ঠিকমত! এ বিষয়ে কি বলবেন? তিশার জবাব, ভালো কি না জানিনা, তবে আমি চেষ্টা করি। ভালো কাজের জন্য সবসময়ই মুখিয়ে থাকি।

আইএন

  • সর্বশেষ
  • পঠিত
  • আলোচিত
best