ঢাকা, শুক্রবার, ২২ নভেম্বর ২০১৯, ৭ অগ্রহায়ণ ১৪২৬ আপডেট : ১৭ মিনিট আগে English

প্রকাশ : ০৮ নভেম্বর ২০১৯, ২১:৩১

প্রিন্ট

ঘূর্ণিঝড় বুলবুল: পশ্চিমবঙ্গে প্রাথমিক স্কুল বন্ধ ঘোষণা

ঘূর্ণিঝড় বুলবুল: পশ্চিমবঙ্গে প্রাথমিক স্কুল বন্ধ ঘোষণা
অনলাইন ডেস্ক

তীব্র সাইক্লোনের রূপ ধারণ করেছেন ঘূর্ণিঝড় বুলবুল। আগামীকাল শনিবার এটি বাংলাদেশ ও ভারতের আঘাত হানবে বলে জানা গেছে। এর প্রভাবে বাংলাদেশে ইতোমধ্যে ৪ নং সতর্কতা সঙ্কেত জারি করা হয়েছে।

ফণীর মতোই বুলবুলের জন্যও আগাম সতর্কতা নিল ভারতের পশ্চিমবঙ্গ রাজ্য সরকার। সেই কারণেই শনিবার কলকাতা, চব্বিশ পরগণাসহ রাজ্যের বেশ কয়েকটি জেলায় প্রাথমিক স্কুল বন্ধ রাখার সিদ্ধান্ত নিল প্রাথমিক শিক্ষা সংসদ।

এছাড়া ভারতের আরো কয়েকটি রাজ্যের সকল শিক্ষা প্রতিষ্ঠান বন্ধ ঘোষণা হয়েছে। ভারতের উড়িষ্যা রাজ্যের সকল শিক্ষা প্রতিষ্ঠান বন্ধ ঘোষণা করা হয়েছে।

অন্যদিকে বুলবুলের কারণে কলকাতাবাসীকে সতর্ক করেছেন মেয়র ফিরহাদ হাকিম৷ কলকাতার মেয়র সোশ্যাল মিডিয়ার মাধ্যমে শহরের মানুষদের সতর্ক করলেন ঘূর্ণিঝড় বুলবুল নিয়ে৷ এছাড়া নাগরিকদের সুরক্ষিত থাকার অনুরোধ করেছেন।

ঘূর্ণিঝড় ‘বুলবুল’ বঙ্গোপসাগর থেকে উত্তর-পশ্চিম উপকূলের দিকে এগিয়ে আসছে বলে জানিয়েছেন আবহাওয়াবিদেরা। তাদের মতে, ঘূর্ণিঝড়টি কাল শনিবার মধ্যরাতের দিকে বাংলাদেশের খুলনা-বরিশাল অঞ্চলের ওপর আঘাত হানতে পারে। তীব্র সাইক্লোনে রূপ নিয়েছে বুলবুল।

ইতোমধ্যে চট্টগ্রামে ৬ নম্বর বিপদ সংকেত এছাড়া মোংলা ও পায়রা সমুদ্রবন্দরে ৭ নম্বর বিপদ সংকেত দেখিয়ে যেতে বলা হয়েছে। শুক্রবার বিকেলে আবহাওয়া অফিস এই তথ্য জানায়।

আবহাওয়া অধিদপ্তর থেকে জানানো হয়, ঘূর্ণিঝড় ‘বুলবুল’-এর কারণে সাগর উত্তাল হয়ে উঠেছে। ছয় ঘণ্টার ব্যবধানে ঘূর্ণিঝড় কেন্দ্রের সর্বোচ্চ গতিবেগ ঘণ্টায় ১০ কিলোমিটার বৃদ্ধি পেয়েছে।

ঘূর্ণিঝড়টির অবস্থান সম্পর্কে আবহাওয়া দপ্তর জানিয়েছে, আজ সকালে ঘূর্ণিঝড় ‘বুলবুল’ চট্টগ্রাম বন্দর থেকে ৭৬৯ কিলোমিটার দক্ষিণ দক্ষিণ-পশ্চিমে, কক্সবাজার থেকে ৭১০ কিলোমিটার দক্ষিণ দক্ষিণ-পশ্চিমে, মোংলা সমুদ্র বন্দর থেকে ৬৬৫ কিলোমিটার দক্ষিণে এবং পায়রা সমুদ্রবন্দর থেকে ৫৫০ কিলোমিটার দক্ষিণে অবস্থান করছিল। ঘূর্ণিঝড়ের বাতাসের গতিবেগ ১১০ কিলোমিটার পর্যন্ত বৃদ্ধি পাচ্ছে।

প্রবল ঘূর্ণিঝড় ‘বুলবুল’র অগ্রবর্তী অংশের প্রভাবে সমুদ্র বন্দরসমূহ, উত্তর বঙ্গোপসাগর ও বাংলাদেশের উপকূলীয় এলাকায় দমকা বা ঝোড়ো হাওয়া বয়ে যেতে পারে।

প্রবল ঘূর্ণিঝড় কেন্দ্রের ৭৪ কিলোমিটারের মধ্যে বাতাসের একটানা সর্বোচ্চ গতিবেগ ঘণ্টায় ১০০ কিলোমিটার, যা দমকা অথবা ঝোড়ো হাওয়ার আকারে ১২০ কিলোমিটার পর্যন্ত বৃদ্ধি পাচ্ছে। প্রবল ঘূর্ণিঝড় কেন্দ্রের কাছে সাগর খুবই বিক্ষুব্ধ রয়েছে।

শুক্রবার সকাল থেকেই দেশের দক্ষিণাঞ্চলসহ অধিকাংশ এলাকায় বিরাজ করছে মেঘলা আবহাওয়া, কোথাও কোথাও গুঁড়ি গুঁড়ির বৃষ্টিও হচ্ছে।

  • সর্বশেষ
  • পঠিত
  • আলোচিত