ঢাকা, সোমবার, ২৪ জুন ২০১৯, ১০ আষাঢ় ১৪২৬ অাপডেট : কিছুক্ষণ আগে English

প্রকাশ : ০৬ জানুয়ারি ২০১৯, ২২:১৭

প্রিন্ট

শব্দমিছিল: পলিয়ার ওয়াহিদ

শব্দমিছিল: পলিয়ার ওয়াহিদ
পলিয়ার ওয়াহিদ

নিরাকার

আমি যার প্রেমে পড়ি- তার আছে ফলের দোকান

যে আমার প্রেমে পড়েছিল- তিনি এক মাংসের দোকানী

আমাদের ভালোবাসার যিনি মালিক-

তার আছে পাখির আড়ৎ

খাঁচার স্কুলে তাই ভর্তি হচ্ছে পালক!

রোদের দিকে মুখ করে বসো

তুমি একটা নকল মানুষ বন্ধু

নিজের দিকে তাকিয়ে হাসো

রোদের দিকে মুখ করে বসো

শীতের দিকে খানিকটা হেঁটে যাও

তোমার দোচালা ঘরের বারান্দায়

স্বর্গীয় স্মৃতির পায়চারি বাড়াও

সবাই তোমাকে যতটা চেনে

জানেও যতটা, তা কি সত্যি তুমি?

অভিনীত মিথ্যেগুলো ফিকে কেন আজ?

নিজেকে আবিস্কার করো

আর হা করে পৃথিবীর দিকে তাকাও

তোমার মুখে মেঘ জমে গেছে

যা কখনো বৃষ্টি হয়ে ঝরবে না

কারণ তুমি ওয়াটার লেভেলকে

প্রতারণার প্রলেপ দিয়ে ঢেকে রেখেছো।

কাছের মানুষ বলে কেউ নেই তোমার

বন্ধু বলে তোমার ছিল না কেউ

মেদুর করুণাকে তুমি সবসময় প্রেম ভেবেছো

নিজের সোহাগী উলঙ্গপনাকে যতই গোপন করছো

ততই লোকের সামনে তোমার আদুরে বেহায়াপনা

প্রকাশ পেয়ে যাচ্ছে!

শুধু সারাদিন নামিদামী বই পড়ে

গায়ে সুগন্ধি আতর মেখে

লুকিয়ে রাখা যায় না মনের দুর্গন্ধ

মানুষে তোমার ঘৃণা

তা না হয় তোমার কাছে প্রবোধ হয়ে থাক

কিন্তু সর্বশেষ মানুষ ছাড়া কার কাছে

আশ্রয় খোঁজো তুমি?

আচ্ছা, এইটা তোমার স্বভাব কিংবা অভ্যাস

আমি না হয় মেনেই নিলাম

কিন্তু যাদের কাছে আমাকে ছোট করছো

তারা আগে থেকেই জানে

আমি একটা ছোটলোক

নিজের সুড়ঙ্গ তুমি নিজেই কাটছো।

তোমার সবচেয়ে গোপন কক্ষের চাবি

লোকের আঁচলে আঁচলে ঘুরছে

তাই নিজেকে কীভাবে সুরক্ষা দেবে

সেটা ভেবেই একবার নিজের মুখোমুখী হও।

তোমার প্রতি আমি আজও কৃতজ্ঞ

না এটা বলতে আমার মোটেও লজ্জা করছে না

কিন্তু তাই বলে তোমার সব অন্যায়

মেনে নিতে পারি না আমি মাথা পেতে

তোমার মুখোমুখী হতেও চায় না মন

ইচ্ছে নেই তোমার মৃত মুখ দেখবারও

আর দুঃসংবাদবাহী যে কাক

সে আমার বাসার ঠিকানা ভুলে যাক!

না তোমাকে এখন ভালোবাসি

ঘৃণা করার যোগ্যও নও তুমি

শুধু তোমার নামটা মনে পড়লে মুখে থু থু জমে

শুধু তুমি মানুষের মতো দেখতে

তাই ক্ষমা করেছি অনেক

যাক এটা ভেবে সুখী হও যে

কাউকে কখনো আর তোমার নামটা বলব না!

কোবিও নির্ধারিত

নবীর মতোন কোবিও নির্ধারিত জমজ পরান

তাকে পাঠানো হয়, পাঠ নিতে

যাবতীয় বেদনা, গ্লানি আর বিষের সমান

কেউ তা লিখে রাখে দর্ষিত সাপের ফনায়

কেউ কেউ সরিষার ক্ষেতে আর ফুলের খামার।

বাংলাদেশ জার্নাল/এনএইচ

  • সর্বশেষ
  • পঠিত
  • অালোচিত
close
close