ঢাকা, রোববার, ০৫ জুলাই ২০২০, ২১ আষাঢ় ১৪২৭ আপডেট : ১ ঘন্টা আগে English

প্রকাশ : ০১ জুন ২০২০, ১২:৫৮

প্রিন্ট

গোল্ডেন এ-প্লাস পেয়ে লাভ কি, কলেজে ভর্তি হতে পারবো?

গোল্ডেন এ-প্লাস পেয়ে লাভ কি, কলেজে ভর্তি হতে পারবো?
লালমনিরহাট প্রতিনিধি

লালমনিরহাটের হাতীবান্ধা উপজেলার সিঙ্গিমারী ইউনিয়নের উওর ধুবনী গ্রামের তাঁতি ঠান্ডু মিয়ার ২য় ছেলে সোহেল রানা। সে এবার হাতীবান্ধা এসএস সরকারি হাইস্কুল এন্ড কলেজ থেকে ভোকেশনাল শাখায় এসএসসি পরীক্ষার ফলাফলে 'গোল্ডেন এ-প্লাস' পেয়েছে। বাবার সাথে তাঁতের কাজ করে গোল্ডেন এ প্লাস পাওয়া সোহেল রানা লেখাপড়া করে ইঞ্জিনিয়ার হতে চায়। কিন্তু তার সেই স্বপ্নে বাঁধা হয়ে দাঁড়িয়েছে দ্রারিদ্রতা। ফলাফল প্রকাশের পর সোহেল রানার এখন ঘুম কেড়ে নিয়েছে সেই প্রশ্ন, গোল্ডেন এ প্লাস পেয়ে লাভ কি? কলেজে ভর্তি হতে পারবো কি?

স্থানীয়দের সাথে কথা বলে জানা যায়, একসময় তাঁত শিল্পের বেশ কদর থাকলেও আধুনিক বিশ্বে তাঁত শিল্প ধ্বংসের পথে। এ পেশার মানুষজন পেশা পরিবর্তন করে অন্য পেশায় চলে গেলেও সোহেল রানার বাবা ঠান্ডু মিয়া এখনো তাঁত শিল্পকে নিয়েই বেঁচে আছেন। সংসারে অভাব আর অনাটনের কারণে তার ১ ছেলে ও ১ মেয়েকে লেখাপড়া করা সম্ভব হয়নি।

তার ওই ছেলে ও মেয়ে বর্তমানে ঢাকায় পোষাকশ্রমিক হিসেবে কাজ করেন। মাঝে মধ্যে তার স্ত্রীও ঢাকায় গিয়ে বিভিন্ন কাজ করেন। ওই পরিবারের ৩য় সন্তান সোহেল রানা লেখাপড়ায় বেশ পারদর্শী হওয়ায় তাকে লেখাপড়া করানোর স্বপ্ন দেখেন পরিবারের অন্য সদস্যরা।

অভাব আর অনটনের মাঝেই শুরু হয় সোহেল রানার লেখাপড়া। সোহেল রানা লেখাপড়ার পাশাপাশি তার বাবাকে তাঁতের কাজে সহযোগিতাও করেন। সেই সোহেল এবারে এসএসসি পরীক্ষার ফলাফলে ভোকেশনাল শাখা থেকে গোল্ডেন এ-প্লাস পেয়েছে। সোহেল রানা পিইসি ও জেএসসিতেও গোল্ডেন এ প্লাস পেয়েছে। এখন সে স্বপ্ন দেখছেন উচ্চ শিক্ষায় শিক্ষিত হয়ে ইঞ্জিনিয়ার হওয়ার। কিন্তু ওই স্বপ্ন দারিদ্রতার কাছে আটকে যাবে না তো- এমন ভাবনা ভাবাচ্ছে তাকে।

সোহেল রানা বলেন, আমি তো পিইসি, জেএসসি ও এসএসসিতে গোল্ডেন এ-প্লাস পেয়েছি। আমি এইচএসসিতেও গোল্ডেন এ-প্লাস পেতে চাই। কিন্তু আমাকে আমার বাবা কলেজে ভর্তি করে দিতে পারবে তো? ভর্তি করে দিলেও আমার বাবার পক্ষে আমার লেখাপড়ার খবর জোগানো সম্ভব নয়। তাহলে দারিদ্রতার কাছে আমি কি হেরে যাবো? গোল্ডেন এ প্লাস পেয়ে লাভ কি, কলেজে ভর্তি হতে পাবো কি?

হাতীবান্ধা এসএস সরকারী হাইস্কুল এন্ড কলেজের প্রধান শিক্ষক রেজাউল করিম প্রধান জুয়েল বলেন, সোহেল রানা একজন মেধাবী ও ভদ্র শিক্ষার্থী। তার পরিবারে আর্থিক সংকট রয়েছে। যদি কেউ সোহেল রানাকে সহযোগিতা করেন তাহলে সে একদিন দেশের সম্পদ হয়ে উঠবে।

বাংলাদেশ জার্নাল/এসকে

  • সর্বশেষ
  • পঠিত
  • আলোচিত