ঢাকা, শুক্রবার, ৩০ অক্টোবর ২০২০, ১৫ কার্তিক ১৪২৭ আপডেট : ১৯ মিনিট আগে English

প্রকাশ : ০১ অক্টোবর ২০২০, ১৮:৩৮

প্রিন্ট

প্রভাবশালী নেতারা ডাকাতদের বাঁচাতে চেয়েছিলো: যশোরের এসপি

প্রভাবশালী নেতারা ডাকাতদের বাঁচাতে চেয়েছিলো: যশোরের এসপি
যশোর প্রতিনিধি

যশোর শহরের জেসটাওয়ারের বিপরীতে ইউসিবিএল ব্যাংকের সামনে বোমা ফাটিয়ে ও ছুরিকাঘাত করে ১৭ লাখ টাকা ছিনতাইয়ের সাথে জড়িত ৫ জনকে আটক করেছে পুলিশ। উদ্ধার করেছে ছিনতাই হওয়া টাকা (২ লাখ ৪৮ হাজার ৫শ টাকা)।

এ ছাড়া ছিনতাই কাজে ব্যবহৃত ২টি চাকু, একটি ব্যাগ ও একটি মোটরসাইকেল জব্দ করা হয়েছে। ঘটনার পর থেকে বৃহস্পতিবার ভোর পর্যন্ত শহর ও শহরতলীর বিভিন্ন স্থানে অভিযান চালিয়ে অভিযুক্তদের আটক ও ছিনতাই করা কিছু টাকা উদ্ধার করা হয়।

বৃহস্পতিবার দুপুরে যশোরের পুলিশ সুপারের কার্যালয়ে আয়োজিত এক প্রেস ব্রিফিংয়ে এ কথা জানান পুলিশ সুপার মো: আশরাফ হোসেন।

আটককৃতরা হলো, শহরের পুলিশ লাইন টালিখোলা এলাকার শফি দারোগার বাড়ির ভাড়াটিয়া টিপু, বারান্দি মোল্লাপাড়ার রবিউল ইসলামের ছেলে সাইদ ইসলাম, ধর্মতলা হ্যাচারী পাড়ার রুহুল আমিনের ছেলে বিল্লাল হোসেন, সিটি কলেজ পাড়ার নিজাম উদ্দিনের ছেলে রায়হান এবং পুর্ববারান্দিপাড়ার মৃত মুফতি আলী হোসেনের ছেলে ইমদাদুল হক। আটকের পর তাদের কাছ থেকে টাকা ও মোটরসাইকেল জব্দ করা হয়।

পুলিশ সুপার বলেন, যারা এই ছিনতাই কাজে জড়িত, তারা সবাই সামাজবিরোধী। তাদের প্রত্যেকের নামে থানায় বিভিন্ন অপরাধের মামলা রয়েছে। ঘটনার পর ঘটনাস্থলের সিসিটিভি ফুটেজ এবং প্রযুক্তি ব্যবহার করে আসামিদের শনাক্ত করা হয়। এরপর পুলিশের বিভিন্ন ইউনিটের সমন্বয়ে অভিযান চালিয়ে শহরের ধর্মতলা, বসুন্দিয়া, আলাদিপুর, বারান্দিপাড়া, সিটি কলেজ পাড়া ও পুলিশ লাইন টালিখোলা এলাকায় একাধিক অভিযান চালিয়ে জড়িতদের আটক করা হয়।

পুলিশ সুপার জানান, আটককৃতরা শহরের মণিহার এলাকায় চলাফেরা করে। ওই এলাকাতেই মোটর পার্টস ও ফলের ব্যবসা করেন এনামুল হক। তাদের কাছ থেকেই ২৯ সেপ্টেম্বর প্রকাশ্য দিবালোকে এরা টাকা ছিনতাই করে। জড়িত অন্যদেরকেও আটক করার চেষ্টা করা হচ্ছে।

তিনি আরো জানান, এ ঘটনার সাথে ৮/১০ জন জড়িত থাকতে পারে। এছাড়া ডাকাতি করে অপরাধীরা রাজনৈতিক নেতাদের কাছে আশ্রয় নেয়। প্রভাবশালী রাজনৈতিক নেতারা তাদের বাঁচানোর চেষ্টা করেছিলো। প্রভাবশালীদের পরিচয়ও পুলিশ জানতে পেরেছে।

পুলিশ সুপারের ব্রিফিংয়ে উপস্থিত ছিলেন অতিরিক্ত পূলিশ সুপার (অপরাধ) সালাউদ্দিন শিকদার, অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (বিশেষ শাখা) তৌহিদুল ইসলাম, অতিরিক্ত পুলিশ সুপার অপু সরোয়ার, অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (ক) সার্কেল গোলাম রব্বানী, কোতয়ালী থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মনিরুজ্জামান, গোয়েন্দা সংস্থার (ডিবি) ওসি সোমেন দাস, চাঁচড়া পুলিশ ফাঁড়ির ইন্সপেক্টর রোকিবুজ্জামান, সদর পুলিশ ফাড়ির ইন্সপেক্টর তুষার কুমার মন্ডলসহ পুলিশের অন্যান্য কর্মকর্তারা।

বাংলাদেশ জার্নাল/এসকে

  • সর্বশেষ
  • পঠিত
  • আলোচিত