ঢাকা, বৃহস্পতিবার, ২৮ জানুয়ারি ২০২১, ১৪ মাঘ ১৪২৭ আপডেট : ১৩ মিনিট আগে English

প্রকাশ : ১৫ নভেম্বর ২০২০, ১৯:১৫

প্রিন্ট

ভোলায় হত্যা মামলায় ১৪ জনের যাবজ্জীবন

ভোলায় হত্যা মামলায় ১৪ জনের যাবজ্জীবন

ভোলা প্রতিনিধি

ভোলার চরফ্যাশনে চাঞ্চল্যকর রশিদ হত্যা মামলায় ১৪ জনের যাবজ্জীবন কারাদণ্ড দিয়েছেন আদালত। কারাদণ্ডের পাশাপাশি ১৪ জননের মধ্যে ১৩ জনকে ৫০ হাজার টাকা করে ও এক জনকে ১ লাখ টাকা অর্থদণ্ডের আদেশ দেয়া হয়।

রোববার দুপুরে ভোলার চরফ্যাশন আদালতের অতিরিক্ত দায়রা জজ মোঃ নুরুল ইসলাম এ আদেশ দেন। একইসঙ্গে মামলার অপর ৪ আসামিকে বেকসুর খালাস দেয়া হয়।

মামলা সূত্রে জানা যায়, চরফ্যাশন উপজেলার ওসমানগঞ্জ ইউনিয়নের ৬ নং ওয়ার্ডের উত্তরফ্যাসন গ্রামের বাসিন্দা আবদুর রশিদ মিয়ার সাথে দীর্ঘদিন ধরে তার প্রতিবেশী ও আত্মীয় স্বজন আবুল বাশার, নুর হোসেন, নোমানসহ মোট ১৮ ব্যক্তির সাথে জমিজমা সংক্রান্ত বিরোধ ও মামলা চলছিল। বিরোধকে কেন্দ্র করে গত ২০১৩ সালের ৩০ মে সন্ধ্যায় আবদুর রশিদ মিয়া বাড়ি থেকে ওসমানগঞ্জ ইউনিয়ন সিমান্ত এলাকায় লালমোহন উপজেলার কর্তারহাট বাজারের মসজিদে মাগরিবের নামাজ শেষে বাড়ি ফিরছিলেন। পথে আসামিরা বাড়ি সংলগ্ন সুপারি বাগানের কাছে ধারালো অস্ত্র দিয়ে কুপিয়ে ঘাড় থেকে মাথা বিচ্ছিন্ন করে হত্যা করে।

এ ঘটনায় ২০১৩ সালে চরফ্যাশন থানায় ১৮ জনকে আসামি করে একটি হত্যা মামলা দায়ের করা হয়। ওই মামলায় ১৪ আসামিকে চরফ্যাশন অতিরিক্ত জেলা দায়রা জজ আদালত যাবজ্জীবন কারাদণ্ড দেন। আসামিদের মধ্যে ৭ জন জেলে থাকলেও বাকি ৭ জন পলাতক রয়েছে।

রাষ্ট্রপক্ষে মামলাটি পরিচালনা করেন চরফ্যাশন অতিরিক্ত জেলা ও দায়রা জজ আদালতের পাবলিক প্রসিকিউটর (পিপি) অ্যাডভোকেট মো. আমিনুল ইসলাম সরমান। আসামিপক্ষে ছিলেন অ্যাডভোকেট সালাউদ্দিন, মোজাম্মেল হক, রমিজ উদ্দিন ও সিদ্দিকুর রহমান।

অ্যাডভোকেট আমিনুল ইসলাম সরমান জানান, হত্যা মামলাটির তথ্য-প্রমাণ বিশ্লেষণে আমারা ঘটনা প্রমাণ করতে সক্ষম হয়েছি। ১৪ জন আসামিকে জাবজ্জীবন কারাদণ্ডের পাশাপাশি অর্থদণ্ড করেন আদালত। এছাড়াও ৪ আসামির বিরুদ্ধে অভিযোগ প্রমাণিত না হওয়ায় আদালত তাদের মামলা থেকে অব্যহতি দিয়েছে।

বাংলাদেশ জার্নাল/এসকে

  • সর্বশেষ
  • পঠিত
  • আলোচিত