ঢাকা, মঙ্গলবার, ২২ অক্টোবর ২০১৯, ৬ কার্তিক ১৪২৬ আপডেট : ৪ মিনিট আগে English

প্রকাশ : ২০ সেপ্টেম্বর ২০১৯, ২০:৫৬

প্রিন্ট

‘খালেদ হাজি সাহেব, তাকে রিমান্ডে নেয়ার কিছু নেই’

‘খালেদ হাজি সাহেব, তাকে রিমান্ডে নেয়ার কিছু নেই’
অনলাইন ডেস্ক

গ্রেপ্তার হওয়া যুবলীগের সেই নেতা ‘ক্যাসিনো’ খালেদের পক্ষে আদালতে তার আইনজীবী মাহমুদুল হাসান শুনানিতে বলেছেন, খালেদ ঢাকা মহানগর দক্ষিণ যুবলীগের সাংগঠনিক সম্পাদক। তাকে পলিটেক্যালি ভিকটিমাইজ করা হয়েছে। তিনি হজ করে এসেছেন। তিনি প্রতিষ্ঠিত ব্যবসায়ী। জামিন দিলে তিনি পলাতক হবেন না।

বৃহস্পতিবার রাতে অস্ত্র ও মাদকের দুই মামলায় মোট সাতদিনের রিমান্ড মঞ্জুর করেন ঢাকার পৃথক দুটি আদালত। আদালতে খালেদের পক্ষে জামিন আবেদন করেন আইনজীবী মাহমুদুল হাসান।

যুবলীগ নেতা খালেদের আইনজীবী আরো বলেন, তার (খালেদ) বাড়িতে যে অস্ত্র পাওয়া গেছে- তা বৈধ। ২০১৭ সালে লাইসেন্সের মেয়াদ শেষ হওয়ায় অবৈধ বলা হচ্ছে। তাছাড়া যে টাকা পাওয়া গেছে বলা আছে, তা কোনো অবৈধ নয়। তিনি নেতা, টাকা থাকতেই পারে।

অন্যদিকে রাষ্ট্রপক্ষের আইনজীবী আদালতে শুনানিতে বলেন, আসামির কাছ থেকে অবৈধ অস্ত্র পাওয়া গেছে। তার বাসা থেকে ইয়াবা ও বিপুল পরিমাণ বিদেশি মদ পাওয়া গেছে। এই ইয়াবা ও মদের উৎস কোথায়, তার সঙ্গে আর কারা কারা জড়িত- এসব বিষয় উদঘাটনের জন্য তাকে জিজ্ঞাবাদের জন্য রিমান্ড প্রয়োজন।

উভয়পক্ষের শুনানি নিয়ে আদালত জামিন আবেদন নামঞ্জুর করে অস্ত্র ও মাদকের দুই মামলায় খালেদকে পর্যায়ক্রমে ৪ ও ৩ দিন করে মোট সাতদিনের রিমান্ডে পাঠিয়ে দেন।

বুধবার রাতে দীর্ঘ অভিযান শেষে গুলশানের বাসা থেকে ঢাকা মহানগর দক্ষিণ যুবলীগের সাংগঠনিক সম্পাদক খালেদ মাহমুদ ভূঁইয়াকে গ্রেপ্তার করে র‌্যাব। এ সময় অস্ত্র, গুলি, মাদকসহ গ্রেপ্তার করা হয়। এর পর থেকে বৃহস্পতিবার দুপুর পর্যন্ত র‌্যাব-৩ এর হেফাজতে ছিলেন খালেদ।

ক্লাবটির সভাপতি খালেদ মাহমুদ ভূঁইয়া। অনেক দিন ধরে এখানে জুয়াসহ নানা অপকর্ম চলছিল। সাম্প্রতিককালে অতিমাত্রায় বেড়ে যাওয়ার পর বুধবার অভিযান পরিচালিত হয়। ইয়াংমেন্স ক্লাবের পর ওই রাতেই ঢাকার আরো তিনটি ক্যাসিনোতে অভিযান চালায় র‌্যাব।

এনএইচ/

  • সর্বশেষ
  • পঠিত
  • আলোচিত