ঢাকা, সোমবার, ১৩ জুলাই ২০২০, ২৯ আষাঢ় ১৪২৭ আপডেট : ১২ মিনিট আগে English

প্রকাশ : ১৯ ফেব্রুয়ারি ২০২০, ২১:২৮

প্রিন্ট

জিপির ১০০ কোটি টাকার প্রস্তাবে বিটিআরসির ‘না’

জিপির ১০০ কোটি টাকার প্রস্তাবে বিটিআরসির ‘না’
ফাইল ছবি
জার্নাল ডেস্ক

অডিট আপত্তির দাবির বিষয়ে আলোচনা চালিয়ে যেতে বাংলাদেশ টেলিযোগাযোগ নিয়ন্ত্রণ কমিশনে (বিটিআরসি) ১০০ কোটি টাকা জমা দিতে গিয়েছিল গ্রামীণফোন। তবে তা ফিরিয়ে দিয়েছে বিটিআরসি।

বুধবার হোটেল সোনারগাঁওয়ে আকস্মিক এক সংবাদ সম্মেলন ডেকে গ্রামীণফোন এ তথ্য জানিয়েছে।

সংবাদ সম্মেলনে গ্রামীণফোনের পরিচালক ও হেড অব রেগুলেটরি অ্যাফেয়ার্স হোসেন সাদাত জানান, ১০০ কোটি টাকার চেক নিয়ে বিটিআরসিতে গিয়েছিলেন তারা। কিন্তু বিটিআরসি এই টাকা নিতে অপারগতা প্রকাশ করে।

বিটিআরসি বলে আসছে, গ্রামীণফোনের কাছে নিরীক্ষা আপত্তির ১২ হাজার ৫৭৯ কোটি ৯৫ লাখ টাকার পাশাপাশি রবির কাছে ৮৬৭ কোটি ২৩ লাখ টাকা পাওনা রয়েছে তাদের।

কয়েক দফা চেষ্টায় সেই টাকা আদায় করতে না পেরে বিটিআরসি লাইসেন্স বাতিলের হুমকি দিয়ে দুই অপারেটরকে নোটিস পাঠায়।

বিটিআরসি সালিশের মাধ্যমে বিষয়টি নিষ্পত্তিতে রাজি না হওয়ায় দুই অপারেটর আদালতের দ্বারস্থ হয়। পরে অর্থমন্ত্রীর উদ্যোগে গ্রামীণফোন ও বিটিআরসির কর্মকর্তাদের মধ্যে দুই দফা বৈঠক হলেও তাতে সফলতা আসেনি।

গ্রামীণফোনের আবেদনে গত ১৭ অক্টোবর বিটিআরসির নিরীক্ষা আপত্তি দাবির নোটিসের ওপর দুই মাসের নিষেধাজ্ঞা দেয় হাইকোর্ট। বিটিআরসি লিভ টু আপিল করলে আপিল বিভাগ ২৪ নভেম্বর গ্রামীণ ফোনকে দুই হাজার কোটি টাকা দিতে নির্দেশ দেয়।

ওই আদেশ পুনর্বিবেচনার জন্য ২৬ জানুয়ারি সুপ্রিম কোর্টে আবেদন (রিভিউ) করেছে গ্রামীণফোন। সেই পুনর্বিবেচনার আবেদনের উপর শুনানির আগের দিন বিটিআরসিকে ১০০ কোটি টাকা দিতে চেয়ে ব্যর্থ হল দেশের শীর্ষ এই মোবাইল অপারেটর।

গ্রামীণফোন কর্মকর্তা সাদাত বলেন, ১০০ কোটি টাকা দেয়ার যে প্রস্তাব, সেটা কিন্তু আলোচনার যে ট্র্যাক এটাকে এগিয়ে নিয়ে যাওয়ার জন্য। আলোচনার ট্র্যাক একটা, আইনি প্রক্রিয়া আরেকটা। দুইটা কিন্তু সম্পূর্ণ ভিন্ন বিষয়। একটার সাথে একটা মেলাবো না। কোর্ট থেকে যে আউটকাম আসবে, সেটার গাইডেন্স নিয়ে আমরা এগোবো। যেহেতু আলোচনার মাধ্যমে কাজটা এগিয়ে নিতে চাই, তার জন্য চেষ্টা চালিয়ে যাব।

বাংলাদেশ জার্নাল/এইচকে

  • সর্বশেষ
  • পঠিত
  • আলোচিত
best