ঢাকা, সোমবার, ৩০ নভেম্বর ২০২০, ১৫ অগ্রহায়ণ ১৪২৭ আপডেট : ১৪ মিনিট আগে English

প্রকাশ : ২৪ অক্টোবর ২০২০, ১৮:৫৪

প্রিন্ট

জার্মানির বিশ্ববিদ্যালয়ে ভর্তি হয়েও মিলছে না ভিসা

জার্মানির বিশ্ববিদ্যালয়ে ভর্তি হয়েও মিলছে না ভিসা
প্রতীকী ছবি
আন্তর্জাতিক ডেস্ক

করোনার কারণে বিভিন্ন দেশে জার্মানির দূতাবাসগুলোর কার্যক্রম কমায় শিক্ষার্থীরাও পাচ্ছেন না ভিসা । তবে শিক্ষার্থীদের ভিসা নিশ্চিতে কাজ চলছে বলে জানিয়েছে দেশটির পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়।

ক্লাস শুরু হয়ে গেছে অনেক আগেই। কিন্তু ভর্তি হয়েও জার্মানিতে আসতে পারছেন না অনেক মাস্টার্সের শিক্ষার্থী। করোনার প্রকোপ শুরুর পর বিভিন্ন দেশে জার্মানির দূতাবাসগুলোর কার্যক্রম সীমিত করা হয়েছে। ছয়-সাতমাস পেরিয়ে গেলেও অনেক দেশেই শিক্ষার্থীরা ভিসা আবেদনের সুযোগ পাচ্ছেন না। যেমন, মেক্সিকোর ভেলেন্টিনা সানচেজ।

বার্লিন বিশ্ববিদ্যালয়ের ফলিত বিজ্ঞানের শিক্ষার্থী তিনি। তার সহপাঠিরা সবাই সশরীরে ক্লাস করলেও তিনি মেক্সিকোর পুয়েবলা শহর থেকে অনলাইনে যুক্ত হচ্ছেন। সানচেজ বলেন, ‘আমরা প্রতিদিনই দূতাবাসে যোগাযোগ করার চেষ্টা করছি। কখন ভিসা সাক্ষাতের প্রক্রিয়া খোলা হবে সেটি তারা বলতে পারছে না।’

একই পরিস্থিতিতে পড়েছেন বাংলাদেশ, ভারত, তুরস্ক, ইরান, নাইজেরিয়াসহ বিভিন্ন দেশের শিক্ষার্থীরা। এদের মধ্যে অনেকেই জার্মানি আসবেন ভেবে চাকরি ছেড়েছেন। অনেকে ভিসা পাওয়ার জন্যে নিজেদের আর্থিক সামর্থ্য প্রমাণে ব্যাংক অ্যাকাউন্টে ১০ হাজার ইউরো জমা করছেন।

‘এডুকেশন ইজ নট ট্যুরিজম’ (শিক্ষা পর্যটন নয়), ভুক্তভোগী শিক্ষার্থীরা অনলাইনে এই নামে একটি হ্যাশট্যাগ চালু করেছেন। যার মাধ্যমে দূতাবাস, জার্মান পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়, পররাষ্ট্রমন্ত্রীসহ বিভিন্ন ব্যক্তি ও প্রতিষ্ঠানের কাছে তারা ভিসার ব্যাপারে ব্যাখ্যা চেয়েছেন।

কোন কোন ক্ষেত্রে এটি কাজেও লেগেছে। কয়েকটি দূতাবাস এই সংকট সমাধানের আশ্বাস দিয়েছে। ভারতে নিযুক্ত জার্মানির রাষ্ট্রদূত সামাজিক মাধ্যমে ভিডিও পোস্ট করে এই বিষয়ে দূতাবাসের উদ্যোগের কথা জানিয়েছেন।

তবে অনেক শিক্ষার্থীর অভিযোগ, দূতাবাসগুলো জার্মানির সরকারের সিদ্ধান্ত যথাযথভাবে অনুসরণ করছে না। গত আগস্টে এক বিবৃতিতে দেশটির গবেষণামন্ত্রী আনিয়া কালিজয়েক জানিয়েছিলেন, বিদেশি শিক্ষার্থীরা যদি প্রমাণ করতে পারেন যে বিদেশ থেকে শিক্ষা পুরোপুরি চালিয়ে যাওয়া সম্ভব না বা ক্লাসে উপস্থিতি আবশ্যক, তারা জার্মানিতে প্রবেশের সুযোগ পাবেন। শিক্ষার্থীদের অভিযোগ এক্ষেত্রে সব দেশের শিক্ষার্থীদের জন্য একই ধরনের ব্যবস্থা নেয়া হয়নি। যেমন, যুক্তরাষ্ট্র ও ব্রাজিলে করোনার সংক্রমণ ব্যাপক হলেও সেখানে মাস্টার্সের শিক্ষার্থীদের ভিসা সাক্ষাত বাতিল করা হয়নি।

ই-মেইলে প্রশ্নের জবাবে জার্মানির পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয় বলেছে, ভিসা আবেদন ও ইস্যু করার বিষয়টি স্থানীয় পরিস্থিতির উপরই নির্ভর করছে। মেক্সিকো ও ইরানের করোনা পরিস্থিতি প্রকট হওয়ায় সেখানকার দূতাবাসের কার্যক্রম কমিয়ে আনা হয় বলে জানানো হয়েছে বিবৃতিতে। তবে শিক্ষার্থীরা যাতে ভিসা পায় সেটি নিশ্চিত করতে মন্ত্রণালয় কাজ করছে বলেও উল্লেখ করা হয়।

মেক্সিকো সিটি ও তেহরানে বছরে তৃতীয় প্রান্তিকে শিক্ষার্থীদের মোট ৩১০ টি ভিসা দেয়া হয়েছে। এর মধ্যে কতজন মাস্টার্সের শিক্ষার্থী তা নিশ্চিত হওয়া যায়নি। সূত্র: ডয়চে ভেলে।

বাংলাদেশ জার্নাল/এইচকে

অন্যরা যা পড়ছেন:

> যুক্তরাষ্ট্রে নৌবাহিনীর বিমান বিধ্বস্ত, নিহত ২

> বায়ু দূষণে পাঁচ লাখ শিশুর মৃত্যু

> আমেরিকায় কমলা হ্যারিস ও নারী নেতৃত্বের সমস্যা

> বিরোধীদের ক্ষমতায় ফিরতে না দেয়ার হুঁশিয়ারি ইমরানের

> ঘানায় গির্জা ধসে নিহতের সংখ্যা বেড়ে ২২

> করোনায় কয়েকটি দেশ বিপজ্জনক অবস্থায় আছে

> আগামী গ্রীষ্ম পর্যন্ত করোনা থাকতে পারে

  • সর্বশেষ
  • পঠিত
  • আলোচিত