ঢাকা, শনিবার, ১৭ আগস্ট ২০১৯, ২ ভাদ্র ১৪২৬ আপডেট : ১১ মিনিট আগে English

প্রকাশ : ২২ জুলাই ২০১৯, ০৮:২৫

প্রিন্ট

ডাইনি অপবাদে ৪ বৃদ্ধ-বৃদ্ধাকে পিটিয়ে হত্যা

ডাইনি অপবাদে ৪ বৃদ্ধ-বৃদ্ধাকে পিটিয়ে হত্যা
অনলাইন ডেস্ক

ভারতে গণপিটুনিতে নিহত হওয়ার ঘটনা যেন থামছেই না। কখনও গো-হত্যা বা গো-মাংস রাখার অপবাদের, কখনও বা ডাইনি অপবাদ দিয়ে লোকজনকে পিটিয়ে হত্যা করার ঘটনা প্রায় প্রতিদিনই ঘটছে। আর এ ক্ষেত্রে সবচেয়ে এগিয়ে সে দেশের ঝাড়খণ্ড রাজ্যটি। শনিবার রাতে এ রাজ্যের গুমলা জেলার নগর সিসকারি গ্রামে ডাইনি অপবাদে চার বৃদ্ধ-বৃদ্ধাকে পিটিয়ে খুন করা হয়েছে। পুলিশের বরাত দিয়ে এ খবর জানিয়েছে স্থানীয় এক সংবাদ মাধ্যম।

এর আগে গত ২১ জুন জয় শ্রীরাম, জয় হনুমান না বলায় সরাইকেলায় তবরেজ় আনসারি নামে এক মুসলিম যুবককে পিটিয়ে হত্যা করা হয়েছিলো। এ ঘটনার এক মাস না হতেই ফের গণপিটুনিতে একসঙ্গে চার প্রবীণকে হত্যার ঘটনা ঘটলো ঝাড়খণ্ডে।

পুলিশ জানায়, নিহতদের নাম সুনা ওরাওঁ (৬৫), পাগনি দেবী (৬০), চাপা ভগত (৬৫) ও তার স্ত্রী পিরি দেবী (৬২)। নিহতরা সবাই পাশাপাশি থাকতেন।

পুলিশ সূত্রে জানা গিয়েছে, শনিবার রাত তিনটে নাগাদ দশ থেকে বারো জন মিলে ওই বৃদ্ধ-বৃদ্ধাদের ঘর থেকে টেনে বের করে গ্রামের অন্যত্র নিয়ে যায়। এরপর তাদের মারধর করা হয়। সেই সঙ্গে ধারালো অস্ত্র দিয়ে কোপানোও হয়। ফলে ওই রাতে চারজনই ঘটনাস্থলেই নিহত হন।

সুনা ওরাওঁয়ের মেয়ে তদন্তকারী অফিসারদের জানিয়েছেন, শনিবার রাতে তাদের ঘরে দরজা ভেঙে ঢুকে পড়ে কয়েক জন। তার বাবাকে টেনে বার করে তারা। তারপর তাদের বাইরে থেকে দরজা বন্ধ করে চলে যায়। যারা এসেছিল তারা তাদের পরিচিত নয় বলে জানিয়েছেন সুনার মেয়ে।

এই ঘটনায় গোটা গ্রামে আতঙ্ক ছড়িয়ে পড়েছে। ফলে এ ঘটনা নিয়ে কেউই মুখ খুলতে চাইছেন না। পুলিশ জানিয়েছে, এই ঘটনায় এখনও পর্যন্ত চারজনকে আটক করা হয়েছে।

ঝাড়খণ্ডে প্রায়ই ডাইনি অপবাদে খুনের ঘটনা মাঝেমধ্যেই ঘটে। এই বিষয়ে গ্রামের মানুষকে সচেতন করতে সরকার নানা রকম উদ্যোগ নিয়েছে। বেসরকারি সংগঠনগুলিও এ নিয়ে গ্রামে গ্রামে প্রচার চালাচ্ছে। কিন্তু সেসব সচেতনতা কর্মসূচিতে যে কাজের কাজ কিছু হচ্ছে না এই চার প্রবীণের হত্যাই এর প্রমাণ। ফলে এই সচেতনতা অভিযানের কার্যকারীতা নিয়ে প্রশ্ন উঠেছে।

সূত্র: আনন্দবাজার

এমএ/

  • সর্বশেষ
  • পঠিত
  • আলোচিত
close
close