ঢাকা, বৃহস্পতিবার, ২২ আগস্ট ২০১৯, ৭ ভাদ্র ১৪২৬ আপডেট : ৪ ঘন্টা আগে English

প্রকাশ : ০৭ ফেব্রুয়ারি ২০১৯, ১৬:৩৪

প্রিন্ট

দুদককে হাইকোর্টের পরামর্শ

স্কুল-কলেজের আগে বড় খাতের দুর্নীতি অনুসন্ধানে নামুন

স্কুল-কলেজের আগে বড় খাতের দুর্নীতি অনুসন্ধানে নামুন
নিজস্ব প্রতিবেদক

স্কুল-কলেজকে প্রধান্য না দিয়ে কাস্টমস, ভূমি, ব্যাংকসহ বড় বড় খাতের দুর্নীতি অনুসন্ধানে দুদককে পরামর্শ দিয়েছেন হাইকোর্ট। বৃহস্পতিবার বিচারপতি শেখ হাসান আরিফ ও রাজীব আল জলিলের যৌথ বেঞ্চ এ মন্তব্য করেন।

সরকারি ও বেসরকারি কোনো ধরণের শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের শিক্ষকরা কোনো ধরণের কোচিংয়ের ব্যবসার সঙ্গে জড়িত থাকতে পারবেন না বলে রায় দিয়েছেন হাইকোর্ট। এতে বলা হয়েছে, সরকারি বা বেসরকারি কোনো প্রতিষ্ঠানের শিক্ষকরাই কোচিং বাণিজ্যের সঙ্গে জড়িত থাকতে পারবেন না।

এর আগে, গত ২৭ জানুয়ারি কোচিং বাণিজ্যকে একটি নতুন ধরনের অপরাধ বলে রায় দেন হাইকোর্ট। কোচিং বাণিজ্য বন্ধে করা এক রিটের শুনানিতে ওই রায় দেন আদালত। রিটের শুনানিতে হাইকোর্ট বলেন, ক্লাস রুমে পড়ানোর ব্যর্থতার কারণেই কোচিং বাণিজ্য হচ্ছে। এটি একটি নতুন অপরাধ।

উল্লেখ্য, শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে শিক্ষকদের কোচিং বাণিজ্য বন্ধ নীতিমালা ২০১২ সালে শিক্ষা মন্ত্রণালয় জারি করলেও এতোদিন তা গেজেট আকারে প্রকাশ করেনি। অবশেষে ছয় বছর পর গত ২৪ জানুয়ারি গেজেট আকারে তা প্রকাশ করে। গেজেটে বলা হয়েছে, সরকারি-বেসরকারি শিক্ষা প্রতিষ্ঠানসমূহের এক শ্রেণির শিক্ষক দীর্ঘদিন ধরে বাণিজ্যিকভিত্তিতে কোচিং পরিচালনা করে আসছেন। এটি বর্তমানে এমন এক পর্যায়ে পৌঁছেছে, যেখানে অভিভাবক ও শিক্ষার্থীরা কোচিং বাণিজ্যের সাথে যুক্ত শিক্ষকদের কাছে জিম্মি। যা পরিবারের বাড়তি আর্থিক চাপ সৃষ্টি করেছে। এই বাড়তি ব্যয় মেটাতে অভিভাবকরা হিমশিম খাচ্ছেন।

এতে আরো উল্লেখ করা হয়, অনেক শিক্ষক শ্রেণিকক্ষে পাঠদানে মনযোগী না হয়ে কোচিংয়ে বেশি সময় ব্যয় করছেন। এক্ষেত্রে দরিদ্র শিক্ষার্থীরা চরম ক্ষতিগ্রস্ত হচ্ছে। এরপর বিভিন্ন অনুচ্ছেদে নীতিমালার অন্যান নির্দেশনা তুলে ধরা হয়েছে।

ডিপি/

  • সর্বশেষ
  • পঠিত
  • আলোচিত
close
close