ঢাকা, মঙ্গলবার, ২৪ নভেম্বর ২০২০, ৯ অগ্রহায়ণ ১৪২৭ আপডেট : ৫ মিনিট আগে English

প্রকাশ : ২৩ অক্টোবর ২০২০, ১৮:৪৬

প্রিন্ট

দেশে বাকশাল প্রতিষ্ঠিত হতে চলেছে: জাফরুল্লাহ

দেশে বাকশাল প্রতিষ্ঠিত হতে চলেছে: জাফরুল্লাহ
নিজস্ব প্রতিবেদক

দেশে আজকে ভিন্ন নামে বাকশাল প্রতিষ্ঠিত হতে চলেছে বলে মন্তব্য করেছেন গণস্বাস্থ্য কেন্দ্রের প্রতিষ্ঠাতা ও ট্রাস্টি ডা. জাফরুল্লাহ চৌধুরী। শুক্রবার জাতীয় প্রেসক্লাবের সামনে ‘রাজনৈতিক দলের নিবন্ধন দাবি বাতিল পরিষদেরর উদ্যোগে এক মানববন্ধন কর্মসূচিতে তিনি এ মন্তব্য করেন।

দেশে আজ গণতন্ত্র নেই মন্তব্য করে জাফরুল্লাহ চৌধুরী বলেন, দেশে আজকে ভিন্ন নামে বাকশাল প্রতিষ্ঠিত হতে চলেছে। সরকার সম্পূর্ণ গণতান্ত্রিক বিরোধী ভিন্ন নামে দেশে ‘বাকশাল’ প্রতিষ্ঠা করছে। এটা চলতে পারে না।

তিনি বলেন, এই সরকারের সকল কর্মকাণ্ড গণতন্ত্র বিরোধী। আমাদের সংবিধানে আমার কথা বলার অধিকার আছে, আমার সংগঠন করার অধিকার আছে, আমার বক্তব্য দেওয়ার অধিকার আছে। কিন্তু সেটা আমাকে করতে দেওয়া হচ্ছে না।

প্রধানমন্ত্রীকে উদ্দেশ্য করে ডা. জাফরুল্লাহ বলেন, মাননীয় প্রধানমন্ত্রী যতগুলো কাজ আপনি করছেন ক্রমেই তা ভুল প্রমাণিত হচ্ছে। যেমন ধরেন- সদ্য নারী নিপীড়ন ও ধর্ষণের বিরুদ্ধে যে আইনের সংশোধনী এনেছেন ‘ফাঁসি’। এই ফাঁসি দিয়ে পৃথিবীর কোথাও কোনো পরিবর্তন হয় নাই। এটা মধ্যযুগীয় শাস্তি।

‘আপনারা পত্রিকা খুলে দেখেন, এই আইন করার আগে ও পরে একন ফোঁটাও অপরাধ কমেনি। বরং বেড়েছে। এখন বাড়তে বাড়তে শিশুর ওপরই হচ্ছে, স্কুলে হচ্ছে এবং মাদ্রাসায় হচ্ছে। এতো বড় ভুল কি করে (প্রধানমন্ত্রী) করলেন?’

প্রতিবেশী দেশ ভারতের সমালোচনা করে তিনি বলেন, আজকের পত্রিকায় আছে- ভারত আমাদের কতটা লুণ্ঠন করেছে। ২০১৮ সালে ভারত বাংলাদেশ থেকে পেয়েছে ১২৮ বিলিয়ন ডলার। আর সারা মুক্তিযুদ্ধে উনাদের খরচ ১০০ মিলিয়নও হয় নাই।

‘ওটা উপলক্ষ করে আজকে দেখলাম তোফায়েল (তোফায়েল আহমেদ) সাহেব বলেছেন, 'আমার আর কিছু পাওয়ার নাই। বঙ্গবন্ধুর স্নেহ পেয়েছি'। এটা উনার আক্ষেপের কথা। তার মতো লোক হাসিনার পাশেই থাকা উচিত। দলের রাজনৈতিক নেতাদের সাথে প্রধানমন্ত্রী আলাপ করেন না, আমাদের সাথে আলাপ করবে কেন?’

বিচারকদের উদ্দেশ্যে জাফরুল্লাহ বলেন, আইনের প্রতি শ্রদ্ধাশীল হতে হলে জজ সাহেবদের বিবেকবান হতে হবে। জজ সাহেবরা এত ভীত যে এখনো লুকিয়ে থাকেন। ভার্চ্যুয়াল কোর্ট করে বেড়ান। রাস্তায় আমরা বের হচ্ছি না, গাড়ি-ঘোড়া চলছে না? কার বুদ্ধিতে এসব করা হচ্ছে জানি না। তবে আমাদের সামনে সমূহ বিপদ। আমার শেষ আবেদন, আমাদের সবাইকে রাস্তায় থাকতে হবে। সবাইকে গণতান্ত্রিক অধিকার ফেরত দিতে হবে।

আয়োজক সংগঠনের আহ্বায়ক সৈয়দ হারুন অর রশিদের সভাপতিত্বে মানববন্ধনে ভাসানী ফ্রন্টের চেয়ারম্যান মমতাজ চৌধুরী, বাংলাদেশ ন্যাপ মহাসচিব গোলাম মোস্তফা ভূঁইয়া, গণস্বাস্থ্য কেন্দ্রের প্রেস উপদেষ্টা জাহাঙ্গীর আলম মিন্টু, এনডিপির মহাসচিব সৈয়দ মনজুর হোসেন ঈসা প্রমূখ বক্তব্যে রাখেন।

কেএস/এনএইচ

  • সর্বশেষ
  • পঠিত
  • আলোচিত