ঢাকা, সোমবার, ১৪ অক্টোবর ২০১৯, ২৯ আশ্বিন ১৪২৬ আপডেট : ১৩ মিনিট আগে English

প্রকাশ : ১৯ সেপ্টেম্বর ২০১৯, ২২:৫৮

প্রিন্ট

নাইজেরিয়ার কিশোর জাদুশিল্পী

নাইজেরিয়ার কিশোর জাদুশিল্পী
ফিচার ডেস্ক

নাইজেরিয়ার রাজধানী লাগোসের রাস্তায় একের পর এক জাদু দেখিয়ে মানুষের মন জয় করে চলেছে কিশোর জাদুশিল্পী বাবস কার্ডিনি। উনিশ বছরের বাবস তার ৫ বছর বয়েস থেকেই জাদুর পাগল। আর ষোল বছরে সে রীতিমত জাদুর প্রদর্শনী শুরু করে দেয়।

তার স্বপ্ন, আগামী তিন বছরের মধ্যে সে বিশ্বের সেরা জাদুশিল্পীদের একজন হবে।

এ বিষয়ে কথা হয় কার্ডিনির সাথে। তিনি বলেন, যখনই আমি জাদু দেখাই, মানুষ আমাকে জিজ্ঞেস করে আমি কি জাজ ব্যবহার করছি? নাকি আমি ভুডু ব্যবহার করছি? আমি কি কোনো চাতুরি করছি নাকি স্রেফ হাতের কারসাজি?

৫ বছর থেকে আমি জাদু ভালোবাসি। কিন্ত আমি প্রথম জাদু দেখানো শুরু করি ১৬ বছরে এসে।

আজ আমি লাগোসের রাস্তায় যাই কিছু কৌশল প্রদর্শনের জন্য। আমি আশাবাদী ছিলাম মানুষকে মুগ্ধ করতে পারবো। আর আমি তাতে সক্ষমও হই।

আমি ছবিকে বাস্তব দেখাই। আপনি কি এটা দেখেছেন? আমি প্রথমে কিছু ছবি নেই তারপর ছবি থেকে বল বের করে দেখাই।

আমি যেখানে যাই মানুষ মুগ্ধ হয়ে যায়। আমার সাথে যোগাযোগ করে। আমার বন্ধু হতে চেষ্টা করে এবং আমার সম্পর্কে আরো বেশি জানতে চায় যোগ করেন কার্ডিনি।

তিনি বলেন, আমি আরো একটি জাদু দেখাতে পারি। যেখানে আমার হাতের মধ্যে থেকে একটা রহস্যজনক আঙ্গুল বের হতে পারে। আমার এ জাদুটি দেখার পর উপস্থিতিরা প্রশ্ন করেন, ওয়াও! তুমি এটি কিভাবে করলে।

আমি টেলিভিশনে যখন জাদু দেখি, তখন আমি দেখেই বুঝতে পারি তারা এটা কিভাবে করেছে। সাথে সাথেই আমি সেটা করার চেষ্টা করি।

আমি মনে করি, আমি এবং জাদু একে অপরের সঙ্গী। এটা নিজের শেখা এবং প্রকৃতিগতভাবেও পাওয়া যায়। তবে এর জন্য বেশি বেশি অনুশীলন করা দরকার।

আমি ২০০ টাকার নোটকে ৫০০ টাকা করতে পারি। নাইজেরিয়ার সংস্কৃতি হলো তারা আপানার জাদু দেখে মুগ্ধ হবে তারপর তারা সবকিছুকে টাকায় পরিণত করার দাবি জানাবে। এখানকার বেশিরভাগ লোকই অনুরোধ করে টাকা বানানোর।

যারা ভালো জাদু দেখায় আমি তাদের ভিডিও ইউটউবে দেখি। আমি আশাবাদী নই, তবে আমি আগামী তিন বছরের মধ্যে বিশ্বের সেরা জাদুকরদের মধ্যে একজন হতে চাই।

বাংলাদেশ জার্নাল/এইচকে

  • সর্বশেষ
  • পঠিত
  • আলোচিত