ঢাকা, বুধবার, ২৯ জুন ২০২২, ১৫ আষাঢ় ১৪২৯ আপডেট : ১ মিনিট আগে

ব্যাটসম্যান মুমিনুলকে নিয়েও কি ভাবার সময় এসেছে?

  ক্রীড়া প্রতিবেদক

প্রকাশ : ২০ জুন ২০২২, ১৩:১০  
আপডেট :
 ২০ জুন ২০২২, ১৩:২১

ব্যাটসম্যান মুমিনুলকে নিয়েও কি ভাবার সময় এসেছে?
ছবি- ইএসপিএন ক্রিকইনফো
ক্রীড়া প্রতিবেদক

সময়টা বড্ড খারপ যাচ্ছিলো কয়েকদিন আগেই সাবেক হওয়া টেস্ট অধিয়ান্যক মুমিনুল হকের। এক মাউন্ট মঙ্গানুই টেস্ট বাদ দিলে দলীয় পারফরম্যান্সে যাচ্ছেতাই অবস্থার পাশাপাশি নিজের ব্যাটিং নিয়েও যেন অন্ধকারে ডুবে ছিলেন মুমিনুল।

ব্যর্থতার বৃত্ত থেকে বেরোতে না পারা মুমিনুল শেষমেশ অধিনায়কত্ব ছাড়লেন ব্যাটিংয়ে পূর্ণ মনোযোগ দিতেই। কিন্তু তাতেও কাজের কাজ কিছুই হলো না। অ্যান্টিগা টেস্টেও ব্যর্থ মুমিনুলের ব্যাট। প্রথম ইনিংসে শূন্য রানে ফেরার পর দ্বিতীয় ইনিংসেও করেন মাত্র ৪ রান। এরপরই স্বাভাবিকভাবেই প্রশ্ন উঠেছে মুমিনুলের একাদশে থাকা নিয়ে।

এদিকে মুমিনুলের ব্যর্থতা ভোগাচ্ছে গোটা দলকেই। টেস্ট স্পেশালিষ্ট হিসেবে মুমিনুল খেলেনই মাত্র এই এক ফরম্যাটে। সেখানেও এখন দলের জন্য উল্টো বিপদই ডেকে আনছেন প্রতিনিয়ত। শেষ নয় ইনিংসে সাবেক এই অধিনায়কের রান মাত্র ২৭। দুই অঙ্কের ঘরে পৌঁছাতে পারেননি একবারও, সাথে আছে তিনটি ডাক।

বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ডের (বিসিবি) অভিভাবকদের আশা ছিলো ঘাড় থেকে নেতৃত্বের চাপ সরে গেলে হয়তো ফর্মে ম্ফিরবেন মুমিনুল। তবে সে আশায় গুড়েবালি। শুধু ব্যাটসম্যান হিসেবে খেলেও ব্যর্থ উইন্ডিজের সাথে প্রথম টেস্টে।

আগের মত বদলে এখন অনেক ক্রিকেট বিশেষজ্ঞের মতে, কিছুদিন বিশ্রাম নিলে হয়তো নিজের স্বরূপে ফিরতে পারেন মুমিনুল।

তবে মুমিনুলের জায়গায় দলের নেতৃত্ব পাওয়া সাকিব আল হাসান অবশ্য বিশ্রামের ব্যাপারটি সাবেক অধিনায়কের ওপরই ছেড়ে দিয়েছেন।

এ ব্যাপারে সাকিব বলেন, ‘সবসময় মুমিনুলের সঙ্গে আমার কথা হয়। ও যদি মনে করে, ওর বিশ্রাম দরকার আছে, তাহলে সেটা হতে পারে, আমার পক্ষে বলা মুশকিল। কিন্তু এ মুহূর্তে একটা ম্যাচ শেষ হওয়ার পরপরই কোনো সিদ্ধান্ত নেয়া বা কোনো কিছু চিন্তা করা খুব একটা ভালো বিষয় নয়। আগামী দু-তিন দিন বিশ্রাম আছে। এরপর যখন সেন্ট লুসিয়ায় অনুশীলন করব, তখন আমরা চিন্তা করতে পারব আমাদের দলের জন্য কোনটা ভালো হতে পারে।’

সবশেষ সাত ইনিংসে তার ব্যাটিং অধঃপতনের কারণে ওয়েস্ট ইন্ডিজ সিরিজের আগে তাকে অধিনায়কত্ব থেকে সরানো হয়েছিল। বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ডের (বিসিবি) অভিভাবকদের মত ছিল, নেতৃত্বের চাপ ঘাড় থেকে নামালে হয়তো সে ফিরবে তার চিরচেনা রূপে। কিন্তু ক্যারিবীয় দ্বীপে দেখা গেল সেই একই পরিণতি। এবার তাই ক্রিকেট বিশেষজ্ঞদের মত, বিশ্রাম নেয়া উচিত মুমিনুলের।

সাকিবের মতোই মুমিনুলের বিশ্রামের ব্যাপারটি তার ওপরেই ছেড়ে দেয়ার কথা জানান সাবেক টাইগার ক্রিকেটার নাজমুল হোসেনও। তিনি বলনে, ‘এটাতে কিন্তু দলেও একটা প্রভাব পড়ছে। এখন মুমিনুলের নিজেরই সিদ্ধান্তটা নেয়া উচিত। ও যদি মনে করে, বিরতি নিলে সে ভালোভাবে ফিরে আসতে পারবে, তাহলে তাই করা উচিত। আর টিম ম্যানেজমেন্টকেও তাকে সাপোর্ট করা উচিত।’

এদিকে শুধু মুমিনুল তো নয়, বিগত অনেকগুলো টেস্টে ব্যর্থ বাংলাদেশের পুরো টপ-অর্ডারই। তাহলে সকলকে বাদ রেখে তো আর দল সাজানো যাবে না। এ ব্যাপারে অধিনায়ক সাকিব বলেন, খুব বেশি পরিবর্তন করলে ভালো কিছু হয়ে যাবে, সেটার নিশ্চয়তাও কেউ দিতে পারবে না। আমরা বোধহয় গত ১৩-১৪ ইনিংসে ১০০ রানের নিচে চার-পাঁচ উইকেট হারিয়েছি। এ জায়গায় আমাদের অনেক বেশি সমস্যা রয়েছে। আমাদের সবাই দায়িত্ব নিলে এ জায়গা থেকে বের হয়ে আসা সম্ভব। আমরা এর আগেও এমন সমস্যায় পড়েছি এবং বেরও হয়েছি।’

তবে দল যেভাবেই সাজানো হোক না কেন, ম্যানেজমেন্ট যদি মুমিনুলকে দলে রাখেও তবুও এবার হয়তো নিজেও নিজের পারফরম্যান্স নিয়ে ভাবতে বাধ্য হবেন সাবেক এই অধিনায়ক। যেভাবে খেলছেন এখান থেকেই নিজেকে কি ফিরে পাবেন নাকি নিজেকে বিশ্রাম দিয়ে হারানো আত্মবিশ্বাস ফিরিয়ে এনেই আবার পুরোনো মুমিনুল হয়ে ফিরবেন? এই প্রশ্নের উত্তরটা এখন দিতে পারবেন মুমিনুল আর তার ব্যাট।

বাংলাদেশ জার্নাল/এসএস

  • সর্বশেষ
  • পঠিত
  • আলোচিত