ঢাকা, শুক্রবার, ০২ অক্টোবর ২০২০, ১৮ আশ্বিন ১৪২৭ আপডেট : ১৪ মিনিট আগে English

প্রকাশ : ১০ আগস্ট ২০২০, ২১:৪৯

প্রিন্ট

সেপটিক ট্যাংক থেকে স্কুলছাত্রের লাশ উদ্ধার, আটক ১

সেপটিক ট্যাংক থেকে স্কুলছাত্রের লাশ উদ্ধার, আটক ১
সাতক্ষীরা প্রতিনিধি

সাতক্ষীরায় নিখোঁজের ১০দিন পর ইটভাটার সেপটিক ট্যাংক থেকে মঈনুল ইসলাম (১৫) নামে এক স্কুলছাত্রের গলিত লাশ উদ্ধার করা হয়েছে। এ ঘটনার সঙ্গে জড়িত থাকার অভিযোগে একজনকে আটক করেছে পুলিশ।

সোমবার বিকেল ৫টায় সদর উপজেলার বাকালে পরিত্যক্ত একটি ইটভাটার সেপটিক ট্যাংক থেকে পুলিশ মঈনুলের লাশ উদ্ধার করে।

মঈনুল ইসলাম সাতক্ষীরা সদর উপজেলার পাঁচরকী গ্রামের সুরত আলীর ছেলে ও সে সাতক্ষীরার ভোকেশনাল স্কুলের নবম শ্রেণির ছাত্র।

গ্রেপ্তার হওয়া হুমায়ুন কবীর (৩৬) সাতক্ষীরা সদর উপজেলার আলীপুর গ্রামের ওয়াহেদ সরদারের ছেলে।

মঈনুল ইসলামের ভাই শাহীনুর রহমান জানান, মঈনুল পড়াশুনার পাশাপাশি মাঝে মাঝে সে ইজিবাইক চালাতো। গত ৩১ জুলাই বিকেল সাড়ে চারটার দিকে ইজিবাইক নিয়ে সে বাড়ি থেকে বের হয়। রাতে ফিরে না আসলে সারারাত খোঁজাখুঁজি করে না পেয়ে ঈদের দিন তার চাচা আফছার আলী সদ থানায় সাধারণ ডায়েরী করেন।

আজ সোমবার সকালে সদরের আলীপুর গ্রামের ওয়াহেদ আলীর ছেলে হুমায়ুন কবীরকে সন্দেহভাজন হিসেবে গ্রেপ্তার করে পুলিশ। তার দেওয়া স্বীকারোক্তি অনুযায়ী, সোমবার দুপুরে হুমায়ুন কবীরের শ্বশুর বাড়ি শ্রীরামপুর গ্রাম থেকে মঈনুলের ব্যবহৃত ইজিবাইক উদ্ধার করা হয়। এরপর বিকেল ৫টার দিকে শহরতলীর বাঁকালে পরিত্যক্ত একটি ইটভাটার সেপটিক ট্যাংক থেকে পুলিশ মঈনুলের গলিত লাশ উদ্ধার করে।

সদর থানার ওসি মো. আসাদুজ্জামান জানান, হুমায়ুন কবীরের স্বীকারোক্তি অনুযায়ী মইনুলের ব্যবহৃত ইজিবাইক ও তার গলিত লাশ উদ্ধার করা হয়েছে। লাশের ময়নাতদন্তের জন্য সাতক্ষীরা সদর হাসপাতালের মর্গে পাঠানো হয়েছে। আটক হুমায়ুন কবীর বিরুদ্ধে মামলার প্রস্তুুতি চলছে।

বাংলাদেশ জার্নাল/আর

  • সর্বশেষ
  • পঠিত
  • আলোচিত