ঢাকা, বৃহস্পতিবার, ২২ অক্টোবর ২০২০, ৭ কার্তিক ১৪২৭ আপডেট : ১৬ মিনিট আগে English

প্রকাশ : ১৮ অক্টোবর ২০২০, ২৩:১০

প্রিন্ট

টাইমস্কেল পুনর্বিবেচনার দাবি প্রধান শিক্ষকদের

টাইমস্কেল পুনর্বিবেচনার দাবি প্রধান শিক্ষকদের
নিজস্ব প্রতিবেদক

টাইমস্কেল প্রদানে পুনর্বিবেচনার দাবি জানিয়েছেন সারকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষকরা। অন্যথায় মামলা অথবা আন্দোলনের কথাও জানিয়েছেন তারা।

বাংলাদেশ প্রাথমিক শিক্ষক সমিতি কেন্দ্রীয় কমিটির সাধারণ সম্পাদক মো. আবুল কাসেম বলেন, আমরা তৃতীয় শ্রেণির পদমর্যাদায় ছিলাম। কারণ দুই পদমর্যাদা (তৃতীয় ও দ্বিতীয় শ্রেণি) যুক্ত করে টাইমস্কেল দেওয়া হবে না বলা হয়েছে। অথচ দেশের সব ডিপার্টমেন্ট টাইমস্কেল পেয়েছে।

মো. আবুল কাসেম আরও বলেন, আমারা আগেও প্রধান শিক্ষক ছিলাম এখনও প্রধান শিক্ষক আছি। দ্বিতীয় শ্রেণির পদমর্যাদা দিয়ে বাইনেম গেজেট জারি হয়নি। আগেও যে বেতন কোডে পেতাম এখনও সেই কোডেই বেতন পাচ্ছি। তাই টাইম স্কেলের দেওয়ার জন্য পুনর্বিবেচনার আবেদন জানাবো। যদি না পাই সেক্ষেত্রে সাংগঠনিকভাবে আলোচনা করে সিদ্ধান্ত নিয়ে মামলা ও আন্দোলন করবো।

উল্লেখ্য, প্রধানমন্ত্রীর উদ্যোগে ২০১৪ সালের সালের ৯ মার্চ প্রাথমিকের প্রধান শিক্ষকদের তৃতীয় শ্রেণি থেকে দ্বিতীয় শ্রেণির পদমর্যাদা দেওয়া হয়। এরপর দ্বিতীয় শ্রেণি হওয়ার পর থেকে টাইমস্কেল দেওয়ার সিদ্ধান্ত নেয় অর্থ বিভাগ। গত ১৫ অক্টোবর অর্থ বিভাগ থেকে প্রাথমিক ও গণশিক্ষা মন্ত্রণালয়ের সচিবকে দেওয়া চিঠিতে বলা হয়, তৃতীয় শ্রেণির পদমর্যাদায় চাকরি সময় ধরে দ্বিতীয় শ্রেণিতে উন্নীত প্রধান শিক্ষকদের টাইমস্কেল দেওয়া হবে না।

সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের পদমর্যাদা ২০১৪ সালের ৯ মার্চ থেকে দ্বিতীয় শ্রেণিতে উন্নীত হয়েছে বিধায় তৃতীয় শ্রেণির চাকরিকালের সঙ্গে দ্বিতীয় শ্রেণির চাকরিকাল গণনা করে জাতীয় বেতন স্কেল ২০০৯ এর ৭(১) অনুচ্ছেদ অনুযায়ী তারা টাইমস্কেল প্রাপ্য হবেন না।

আরও পড়ুন-

টাইমস্কেল নিয়ে সুখবর পাচ্ছেন যারা (তালিকাসহ)

সরকারি কর্মচারীদের তিনটি টাইমস্কেল!

বাংলাদেশ জার্নাল/ একে/ আর

  • সর্বশেষ
  • পঠিত
  • আলোচিত