ঢাকা, শনিবার, ২৪ অক্টোবর ২০২০, ৯ কার্তিক ১৪২৭ আপডেট : ৪ মিনিট আগে English

প্রকাশ : ২৭ সেপ্টেম্বর ২০২০, ১৬:২১

প্রিন্ট

হোমিওপ্যাথি বোর্ডকে দুর্নীতিমুক্ত করার দাবি

হোমিওপ্যাথি বোর্ডকে দুর্নীতিমুক্ত করার দাবি
নিজস্ব প্রতিবেদক

বাংলাদেশ হোমিওপ্যাথি বোর্ডকে দুর্নীতিমুক্ত ও হোমিওপ্যাথি চিকিৎসাসেবার মান উন্নয়নে চার দফা দাবি জানিয়েছে বাংলাদেশ ডিএইচএমএস ডক্টরস ফাউন্ডেশনের কর্মকর্তারা।

রোববার বাংলাদেশ ক্রাইম রিপোর্টার্স এসোসিয়েশন কার্যালয়ে বাংলাদেশ ডিএইচএমএস ডক্টরস ফাউন্ডেশন, দুর্নীতি নির্মুল ও হোমিওপ্যাথিক উন্নয়ণ কমিটির পক্ষ থেকে আয়োজিত এক যৌথ সংবাদ সম্মেলনে এ দাবি জানানো হয়।

সংবাদ সম্মেলনে লিখিত বক্তব্যে বাংলাদেশ ডিএইচএমএস ডক্টরস ফাউন্ডেশনের জেনারেল সেক্রেটারি ডা. ওমর কাওছার দাবিগুলো উপস্থাপন করেনে।

তাদের দাবি গুলো হচ্ছে, ডিএইচএমএস কোর্সের শিক্ষাগত মান নির্ধারণ, ডিএইচএমএস উত্তীর্ণদের উচ্চ শিক্ষার গবেষণার সুযোগ প্রদান এবং প্রস্তাবিত বঙ্গবন্ধু হোমিওপ্যাথি ইউনিভার্সিটির প্রাথমিক অনুমোদন প্রদান। এছাড়া ডিএইচএমএস চিকিৎসকদের সরকারি চাকরির ব্যবস্থা করার দাবি করা হয়েছে।

তিনি হোমিওপ্যাথি অ্যাক্ট ১৯৮৩ অবজ্ঞা করে অনিয়মতান্ত্রিকভাবে চিকিৎসা প্রতিনিধি বাদ দিয়ে বাংলাদেশ হোমিও বোর্ড গঠন এবং হোমিওপ্যাথিক বোর্ডের চেয়ারম্যান কতিপয় বোর্ড সদস্যবৃন্দের ব্যাপক দুর্নীতির কারণে বোর্ড পরিচালনা কমিটি ভেঙে দেয়ার দাবি জানান।

ডা. ওমর কাওছার বলেন, হোমিওপ্যাথি বোর্ডের চেয়ারম্যান হওয়ার পর ডা. দিলীপ রায় ৩৪টি নুতন কলেজের অনুমোদন দিয়েছেন। শিক্ষক কর্মকর্তা পদোন্নতির ক্ষেত্রে ৯০ শতাংশ নিয়মতান্ত্রিকভাবে করা হয়নি।

হোমিওপ্যাথি বোর্ডের চেয়ারম্যান আইন ভঙ্গ করে স্বীকৃতির ৬ মাসের মধ্যে কলেজের জন্য ৫০ লাখ টাকা বরাদ্দ দেয়া হয়েছে। বিভিন্ন কলেজের নামে ৩০ লাখ টাকা অনুমোদন দিয়েছেন। এ অভিযোগ তদন্ত করে দ্রুত আইনি পদক্ষেপ নিতে প্রধানমন্ত্রীর হস্তক্ষেপ কামনা করেছেন সংগঠনের কর্মকর্তারা।

সংবাদ সম্মেলনে উপস্থিত ছিলেন, বাংলাদেশ হোমিওপ্যাথিক মেডিকেল ফেডারেশনের সভাপতি ডা. সাখাওয়াত ইসলাম ভুইয়া, ডা. হুমায়ূন কবির, ডা. রোকেয়া বেগম, ডা. আফরোজা সুলতানা দিপালী, ডা. আকবর হোসাইন, ডা. এনামুল হক, ডা. খন্দকার লিটন প্রমুখ।

বাংলাদেশ জার্নাল/এসএস/আরকে

  • সর্বশেষ
  • পঠিত
  • আলোচিত