ঢাকা, বৃহস্পতিবার, ১৩ আগস্ট ২০২০, ২৯ শ্রাবণ ১৪২৭ আপডেট : ৭ মিনিট আগে English

প্রকাশ : ২৫ নভেম্বর ২০১৯, ১৬:৩৭

প্রিন্ট

বাংলাদেশকে ডেকে লসের মুখে ভারত!

বাংলাদেশকে ডেকে লসের মুখে ভারত!
স্পোর্টস ডেস্ক

ইডেন গোলাপি বলের টেস্ট শেষ হয়ে গিয়েছে তৃতীয় দিনেই। ফলে, যে ক্রিকেটপ্রেমীরা চতুর্থ ও পঞ্চম দিনের টিকিট কেটেও খেলা দেখার সুযোগ থেকে বঞ্চিত হয়েছিলেন, তাদের টাকা ফেরত দিচ্ছে ক্রিকেট অ্যাসোসিয়েশন অফ বেঙ্গল (সিএবি)।

সিএবি এবার মূলত অনলাইনে টিকিট বিক্রি করেছে। সেই দায়িত্ব যাদের ছিল, সেই ‘বুকমাইশো’ সংস্থা সিএবির অনুমতি নিয়ে চতুর্থ ও পঞ্চম দিনের টিকিটের টাকা ফেরত দেওয়ার সিদ্ধান্ত নিয়েছে। যারা টিকিট কেটেছিলেন, তাদের কাছে এই সংক্রান্ত মেসেজও পৌঁছে গিয়েছে। পাঁচ থেকে সাত দিনের মধ্যে টাকা ফেরত দেওয়ার প্রতিশ্রুতি দেওয়া হয়েছে সেই মেসেজে।

যে ক্রিকেটপ্রেমীরা অনলাইনে টিকিট কাটেননি, তাদেরও কী ভাবে টাকা ফেরত দেওয়া যায়, সেই ব্যাপারেও ভাবনাচিন্তা করছে সিএবি।

গতকাল অবশ্য সিএবি থেকে অন্য কথা জানানো হয়েছিল। কোষাধ্যক্ষ দেবাশিস গঙ্গোপাধ্যায় বলেছিলেন, টাকা ফেরত দেওয়ার কোনও ব্যাপার নেই। ম্যাচ একদিনে শেষ হলেও টাকা ফেরত দেওয়া হত না।

আজ যোগাযোগ করা হলে তিনি টাকা ফেরত দেওয়ার খবরে অবাক হয়ে যান। পরে এই ধোঁয়াশা কাটিয়ে দিলেন সচিব অভিষেক ডালমিয়া। তিনি বললেন, 'সিজন টিকিটের ক্ষেত্রে যদি একটা বলও খেলা হয়, তা হলে টাকা ফেরত দেওয়া হয় না। কিন্তু আমরা এই টেস্টের মূলত ডেইলি টিকিট বিক্রি করেছি। এ ক্ষেত্রে নিয়ম হল, কোনও নির্দিষ্ট দিন এক বলও খেলা না হলে সে দিনের টাকা ফেরত দিতে হবে। যে কোনও ডেইলি টিকিটের ক্ষেত্রে এটাই নিয়ম। ‘বুকমাইশো’ আমাদের কাছে লিখিত অনুমতি নিয়েই টাকা ফেরত দিচ্ছে। আর আমরা চাই ক্রিকেটপ্রেমীদের পাশে থাকতে, চাই তারা খেলা দেখতে আসুন। সেই কারণেই এই উদ্যোগ। তবে সিজন টিকিট হলে এটা হত না।' এর আগে ভারত বনাম দক্ষিণ আফ্রিকার পুণে টেস্টেও একই ঘটনা ঘটেছে বলে জানিয়েছেন তিনি।

তবে এই নির্দিষ্ট টেস্টের ক্ষেত্রে চেষ্টা করা হচ্ছে, যে ক্রিকেটপ্রেমীরা সিজন টিকিট কেটেছেন, তাদেরও শেষ দুই দিনের টাকা ফেরত দেওয়ার। অভিষেক বললেন, 'যারা অফলাইনে সিজন টিকিট নিয়েছেন, তাদের কী ভাবে টাকা ফেরত দেওয়া যায়, তাও ভেবে দেখছি। চাই না টাকা দিয়ে কোনও মানুষ বঞ্চিত হন। যারা খেলা দেখতে পাননি, তাদের কাছে এটা ক্রিকেটের দারুণ বিজ্ঞাপন হয়নি। সোমবার সিএবিতে ছুটি। তার পর আমরা এটা নিয়ে সিদ্ধান্ত নেব।'

  • সর্বশেষ
  • পঠিত
  • আলোচিত