ঢাকা, বুধবার, ০৩ জুন ২০২০, ২০ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৭ আপডেট : ৬ মিনিট আগে English

প্রকাশ : ২৪ মে ২০২০, ০৩:১৩

প্রিন্ট

ময়মনসিংহ পতিতা পল্লীতে হাসি ফুটাল একদল যুবক

ময়মনসিংহ পতিতা পল্লীতে হাসি ফুটাল একদল যুবক

Evaly

ময়মনসিংহ প্রতিনিধি

করোনা ভাইরাসের প্রকোপে দেশে বিভিন্ন জায়গায় লকডাউন চলছে। ফলে অর্থনীতিতে বিরাট প্রভাব পড়েছে। কর্মহীন হয়ে পড়েছেন অনেকে। এই প্রভাবের বাইরে নেই দেশের পতিতা পল্লীর জনগোষ্টীও। তেমন একটি ময়মনসিংহ পতিতা পল্লী। তবে এই পল্লীতে এবার হাঁসি ফুটিয়েছে একদল যুবক।

বুধবার দুপুরে “নিমু দিমু” এবং “টঙ-ঘর টকিজ” নামের দুই সংগঠনের সদস্যরা ঈদ উপলক্ষে তাদের সম্মিলিতভাবে সংগৃহিত টাকা নগরীর রমেশ সেন রোডস্থ (স্বদেশী বাজার) পতিতা পল্লীর ২০৫ জন যৌনকর্মী ও তাদের পরিবারের হাতে নগদ ৫০০ টাকা করে তুলে দেয়া হয়।

এই যুবকরা তাদের ব্যক্তি ও পেশাগত অবস্থানে অত্যন্ত সফল। কেউ উকিল, কেউ শিক্ষক, গ্রাফিক্স ডিজাইনার, কেউ সাংস্কৃতিক কর্মী, কেউ চিত্রশিল্পী, কেউ সংঙ্গীত শিল্পী, কেউবা সফল সংগঠক।

এই যুবকরা বলছে, সামাজিক দায়বদ্ধতা ও মানবিকতার কারনেই তাদের পতিতা পল্লীতে প্রবেশ। বর্তমান করোনা পরিস্থিতির কারনে বিভিন্ন শ্রেনী পেশার মানুষেরা কর্মহীন হয়ে পড়ে মানবেতন জীবন যাপন করছে। বিভিন্ন ব্যক্তি ও সংগঠন সাধারন মানুষের সাহায্যে এগিয়ে এলেও পতিতা পল্লীতে বসবাস করা যৌনকর্মীদের দিকে কারো নজর নেই বললেই চলে। আর এই জন্যই সামাজিক দায়বদ্ধতা ও মানবিককতা এবং ঈদের আনন্দ ভাগাভাগি করতে সামান্য সাহায্য নিয়ে তাদের পাশে দাঁড়াতেই তাদের পতিতা পল্লীতে প্রবেশ।

নিমু দিমু সংগঠনের শামীম আশরাফ বলেন,আমার ওরা জীবনে প্রথমবার সম্ভবত ঈদ পেলো, বিশ্বাস করেন চোখে মুখে যে আনন্দের ছাপ দেখেছি তা বলে প্রকাশ করার মত না, মাত্র ৫০০ টাকায় এত খুশি হয় মানুষ!!

নিমু দিমু সংগঠনের মো: রাজন বলেন, ঈদ ধনী-গরীব,সকল পেশার মানুষের। তাই করোনাকালীন এই বিপর্যয়ে সমাজের পিছিয়ে পড়া যৌন কমীরা যেন আনন্দ থেকে বঞ্চিত না হয়, সেই লক্ষেই আমাদের এই ক্ষুদ্র প্রয়াস।

ঈদ উপহার দেওয়ার সময় উপস্থিত ছিলেন, চিত্রশিল্পী মো: রাজন, কবি শামীম আশরাফ, টঙ-ঘর টকিজ এর কবি হাসান জামিল, ময়মনসিংহ বিভাগীয় চারুশিল্পী পর্ষদ এর সদস্য সচিব গৌতম কুমার দেবনাথ, বিডি ক্লিন ময়মনসিংহ এর মতিউর রহমান ফয়সাল, সাফরান আহমেদ, চিত্রশিল্পী বিশ্বজিৎ কর্মকার তপু, নাজমুল হোসেন রাহাত, সংস্কৃতি কর্মী তুষার,সংঙ্গীত শিল্পী সাখাওয়াত হোসেন মিঠু প্রমুখ।

উল্লেখ্য, ইতিপূর্বে করোনকালীন সময়ে এই যুবকেরা একদিন যৌনকর্মীদের ইফতারের পরিবশে করে।

বাংলাদেশ জার্নাল/আর

  • সর্বশেষ
  • পঠিত
  • আলোচিত