ঢাকা, সোমবার, ২৬ অক্টোবর ২০২০, ১১ কার্তিক ১৪২৭ আপডেট : ১৭ মিনিট আগে English

প্রকাশ : ২৮ সেপ্টেম্বর ২০২০, ১৬:৫১

প্রিন্ট

পতিতালয়ের করোনা যেন ‘মরণ’

পতিতালয়ের করোনা যেন ‘মরণ’
ছবি: প্রতিনিধি
মঈন উদ্দিন রায়হান

‘আমরা কেউই ভালো নেই। এমন খারাপ দিন আসবে কোনদিন ভাবিনি। টাকা পয়সা রোজগার একদমই বন্ধ হয়ে গেছে। জামানো যে টাকাও স্বর্ণ ছিলো তা দিয়ে প্রায় দুই মাস চলেছি, কিন্তু এখন তো আর দিন চলে না। কারো কাছে ধার চাইলেই কেউ দিতে চাচ্ছে না। এখন নিজেই কিভাবে চলবো, কিভাবে তিন ছেলে-মেয়ের ভরন পোষণ করবো এটা ভেবে হতাশায় দিন কাটছে। পতিতালয়ের করোনার যেন মরণ।’ -আবেগ আপ্লুত কন্ঠে কথাগুলো বলছিলো ময়মনসিংহ নগরীর গাঙ্গিনারপাড় এলাকায় অবস্থিত পতিতা পল্লীর যৌনকর্মী কবিতা (৪৩) (ছন্মনাম)।

করোনাকালীন সময়ে গাঙ্গিনারপাড় পতিতা পল্লীর কেউই ভালো নেই, সকলের উপার্জনই বন্ধ হয়ে অসহায় জীবনযাপন করছে সেই সাথে নিজের তিন সন্তানের ভবিষ্যত নিয়ে দুচিন্তার কথা জানিয়ে যৌনকর্মী কবিতা জানান, প্রতিদিন যা আয় হতো তা দিয়ে ঘর ভাড়া, খাবারসহ যাবতীয় খরচ বাদে পতিতা পল্লীর বাইরে বাসা ভাড়া করে তার তিন সন্তানের মাঝে বড় ছেলেকে কলেজে, বড় মেয়েকে সপ্তম শ্রেণিতে এবং ছোট মেয়ে তৃতীয় শ্রেণিতে পড়াশোনা করাচ্ছেন তিনি।

কবিতা আক্ষেপ করে জানান, প্রায় ২৬ বছর আগে অভাবের তাড়নায় সেচ্ছায় জনৈক এক দালালের মাধ্যমে ময়মনসিংহের পতিতা পল্লীতে আসি তখন থেকেই ভালো টাকা আয় হতো। কিন্তু প্রায় ৬ মাস ধরে করোনাভাইরাসের কারণে কোন খদ্দের না আসায় তার আয়ের পথও বন্ধ। অর্ধহারে-অনাহারে কোনমতে দিন কাটছে তার।

শুধু কবিতাই নয়, কবিতার মতো ময়মনসিংহ শহরের গাঙ্গিনারপাড় এলাকার যৌনপল্লীর প্রায় তিন শতাধিক কর্মী মানবেতর জীবনযাপন করছে।

ব্রিটিশ আমলের পুরোনো এই যৌন পল্লীতে সরকারী ও ব্যক্তিমালিকানাসহ ১০টি বাড়িতে প্রায় ৩০০ যৌনকর্মী এবং তাদের পরিবারের সদস্যসহ প্রায় এক হাজার মানুষের বসবাস। মার্চ মাসের শেষের দিকে করোনাভাইরাসের সংক্রমণ ঠেকাতে প্রশাসনের পক্ষ থেকে পতিতা পল্লীর কার্যক্রম বন্ধ করে দেয়া হয়।

গত এক মাস ধরে কিছু কিছু ক্রেতা পল্লীতে প্রবেশ করলেও। সেই ক্রেতার সংখ্যাও আবার নগন্য। আগে দিনে যেখানে প্রায় হাজারের উপড়ে ক্রেতা আসতো এখন আসে মাত্র দেড় থেকে দু’শ ক্রেতা। করোনার ভয়ে তারা কেউ আর এই পল্লীতে আসার সাহস করছে না।

মনি আক্তার নামে এক যৌনকর্মী জানান, লকডাউনের মধ্যে বাড়ি ভাড়া মওকুফ থাকলেও বাকি খরচগুলো করতে হয়েছে প্রতিনিয়ত। আয় না থাকলেও ব্যয় ঠিকই হচ্ছে। এ ছাড়াও নিজের জন্য ওষুধসহ প্রয়োজনীয় জিনিস কিনতে হচ্ছে। করোনা শুরুর দুই-তিন মাস জেলা প্রশাসন ও সিটি কর্পোরেশন এবং বিভিন্ন সংস্থা থেকে সহায়তা করলেও এখন তা বন্ধ হয়ে গেছে।

সাথী নামে আরেক যৌনকর্মী বলেন, সাত বছর ধরে এই পল্লীতে আমার বসবাস। খাবার ও টাকার জন্য কোনো দিন কারো কাছে হাত পাততে হয়নি। কিন্তু মহামারি করোনার কারণে প্রায় ছয়মাস ধরে খুব কষ্টে চলতে হচ্ছে।

যৌনকর্মীদের সংগঠণ শুকতারা কল্যাণ সমবায় সমিতির সম্পাদক রুমানা আক্তার রুমা জানান, ব্রিটিশ আমলে ময়মনসিংহ মহানগরীর কেন্দ্রবিন্দু গাঙ্গিনারপাড় এলাকায় প্রতিষ্ঠিত পতিতা পল্লীতে বর্তমানে প্রায় ৩ শতাধিক কর্মক্ষম যৌনকর্মী আছে। করোনাভাইরাসের প্রাদুর্ভাবের শুরুতেই সংক্রমণের ভয়ে স্থানীয় প্রশাসন পতিতা পল্লীর কার্যক্রম বন্ধ করে দেয়। এখানকার যৌনকর্মীরা নগদ অর্থ আয় করে দুই হাতে খরচ করে থাকে। বিশেষ করে অল্প বয়েসি এবং নতুন পেশায় আসা যৌনকর্মীরা টাকা জমানোর কথা ভাবতেও পারে না। তাই অধিকাংশ যৌনকর্মীরা কাজ এবং আয় রোজগার না থাকায় তারা অর্থাভাবে মানবেতর জীবন যাপন করছে।

শুকতারা কল্যাণ সমবায় সমিতির সভাপতি লাভলী হোসেন জানান, লকডাউনে কাস্টমার না থাকায় স্বচ্ছল অন্য যৌন কর্মীর বাসায় কাজ করে তাদের সহযোগিতায় চলতে হচ্ছে। আমি সরকারি-বেসরকারি সহযোগিতার দাবি করছি। স্থানীয় প্রশাসন এসব কর্মীদের পাশে আর্থিক সহায়তার হাত বাড়ালেই একমাত্র তারা কিছুটা ডাল ভাত খেয়ে দিন যাপন করতে পারবে।

ময়মনসিংহ সিটি মেয়র ইকরামুল হক টিটু বলেন, যৌন কর্মীদের সহায়তার জন্য সিটি কর্পোরেশনের পক্ষ থেকে প্রয়োজনীয় প্রদক্ষেপ গ্রহণ করা হবে। এরই মধ্যে পতিতা পল্লীতে ত্রাণ সহায়তা বরাদ্দ দেওয়া হয়েছে। যৌণ কর্মীরা আবেদন কিংবা তাদের সমস্যা নিয়ে তার সাথে যোগাযোগ করলেই তাদের জন্য প্রয়োজনীয় সহায়তা দেয়ার কথা জানান।

ময়মনসিংহ জেলা প্রশাসক মো. মিজানুর রহমান জানান, ইতিপূর্বে মানবিক কারণে জেলা প্রশাসনের পক্ষ থেকে যৌন কর্মীদের চাল ও নগদ অর্থ দিয়ে সহযোগিতা করা হয়েছে। সরকারী সহায়তা আসলেই অগ্রাধিকার ভিত্তিতে কষ্টে থাকা যৌনকর্মীদের বিষয়টি বিবেচনায় রেখে সহায়তা করা হবে।

বাংলাদেশ জার্নাল/এইচকে

আরো পড়ুন:

> রমনা পার্কের গেট খুললো

> হারাতে বসেছে বাঙালির ঐতিহ্যের নৌকা বাইচ

> যাবজ্জীবন রায় শুনে যা বললেন সাহেদ

> পানির নিচে কৃষকের স্বপ্ন

> সুপ্রিম কোর্টে মাহবুবে আলমের জানাজা সম্পন্ন

> মুক্তিযোদ্ধাদের সম্মানী বাড়ানোর সুপারিশ

  • সর্বশেষ
  • পঠিত
  • আলোচিত